• অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান সিরিজ
  • " />

     

    পাকিস্তানকে উড়িয়ে দিয়ে টি-টোয়েন্টির বছর শেষ করল অস্ট্রেলিয়া

    পাকিস্তান ২০ ওভারে ১০৬/৮

    অস্ট্রেলিয়া ১১.৫ ওভারে ১০৯/০

    ফলঃ অস্ট্রেলিয়া ১০ উইকেটে জয়ী

    তিন ম্যাচের সিরিজে ২-০ ব্যবধানে জয়ী


    সিরিজে অস্ট্রেলিয়া হারছে না, সেটা নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল আগেই। পাকিস্তান বড়জোর ফেরাতে পারত সমতা। কিন্তু সেটা দূরে থাক, লড়াইটাও করতে পারেনি। ১০ উইকেটের জয়ে সিরিজ জিতল ২-০ ব্যবধানে, টি-টোয়েন্টির বছর শেষ করল অপরাজিত থেকেই। আর পাকিস্তানের ২০ ওভারের দুঃস্বপ্ন চলছেই, এই বছর একটা মাত্র ম্যাচে হেরেছে তারা। সামনের বছর নিজেদের মাঠে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, তার আগে প্রতিপক্ষদের শক্ত একটা বার্তা দিয়ে রাখল অস্ট্রেলিয়া।

    ম্যাচটা আসলে পাকিস্তান হেরে গেছে প্রথম ইনিংসেই। শেষ ম্যাচে চারটি পরিবর্তন এসেছিল দলে, অভিষেক হয়েছে খুশদিল শাহ ও মোহাম্মদ মুসা। ইমাম উল হক ফিরেছেন ওপেনিংয়ে, কিন্তু বড় কিছু করতে পারেননি। তৃতীয় ওভারেই সবচেয়ে বড় ধাক্কাটা খেয়েছে পাকিস্তান, মিচেল স্টার্কের বলে এলবিডব্লু হয়ে গেছেন অধিনায়ক ও বড় ভরসা বাবর আজম। পরের বলে স্টার্ক এলোমেলো করে দিয়েছেন মোহাম্মদ রিজওয়ানের স্টাম্প।

    পাঁচ বছর পর দলে ফিরে শন অ্যাবট বল করেছেন দারুণ, পুরস্কার পেয়েছেন তাড়াতাড়ি। পুল করতে গিয়ে ক্যাচ দিয়েছেন ইমাম, ফিরেছেন ১৪ রানে। ইফরিখার আহমেদ দারুণ কিছু শটে শুরু করেছিলেন, ভালো ফর্মটা টেনে আনছিলেন এই ম্যাচেও। কিন্তু অন্যদিকে হারিস সোহেল ফিরেছেন ৮ রানে, খুশদিল শাহও তাই। অ্যাশটন অ্যাগার নিয়েছেন হারিসের উইকেট, খুশদিলকে আউট করেছেন রিচার্ডসন। ইমাদ ওয়াসিম অ্যাবটকে পুল করতে গিয়ে আউট হয়েছেন ৬ রানে, দারুণ এক ক্যাচ নিয়েছেন অ্যাশটন অ্যাগার। ইফতিখার তখনও ছিলেন, কিন্তু তার আউটে শেষ হয়ে গেল পাকিস্তানের লড়াই করতে পারার মতো পুঁজির আশাও। ৩৭ বলে ৪৫ রান করে আউট হয়ে গেলেন রিচার্ডসনের বলে, ৯২ রানে সপ্তম উইকেট নেই পাকিস্তানের। এর পর পুরো ২০ ওভার খেলেও ১০৬ রানের বেশি করতে পারেনি পাকিস্তান। অস্ট্রেলিয়ার সব বোলারই নিজেদের কাজটা ঠিকমতো করে গেছেন, ৩ উইকেট নিয়েছেন রিচার্ডসন। তবে অ্যাবট আর স্টার্কও ছিলেন দুর্দান্ত।

    এই রান অস্ট্রেলিয়ার জন্য যথেষ্টর চেয়েও কম ছিল, সেটা প্রমাণ করতে খুব বেশি সময় নেননি ওয়ার্নার-ফিঞ্চ। শুরুর দিকে আধ একটা সুযোগ দিয়েছেন, মিসটাইম হয়ে চার ছয়ও হয়েছে। কিন্তু অল্প রানের লক্ষ্যে এরপর আর কোনো ভুল করেননি দুজন। ৩৬ বলে ৫২ রানে অপরাজিত ছিলেন ফিঞ্চ, আর ওয়ার্নার ইনিংস শেষ করেছেন ৩৫ বলে ৩৮ রান করে। ১১.৫ ওভারেই শেষ করে ফেলেছেন ম্যাচ। পুরো সিরিজেই দুর্দশা অব্যাহত ছিল পাকিস্তান বোলারদের, নিতে পেরেছে কেবল তিনটি উইকেট। অবশ্য সিরিজে অনায়াসেই ধবলধোলাই হতে পারত পাকিস্তান। বৃষ্টিতে প্রথম ম্যাচ ভেসে না গেলে সেটি যে অস্ট্রেলিয়া জিতত, সেটি নিয়ে যে খুব একটা সংশয় নেই!