• ইউরো বাছাইপর্ব
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    ইউরো ২০২০ ড্র: একই গ্রুপে ফ্রান্স, পর্তুগাল, জার্মানি

    বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স, ইউরো চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল আর ২০১৪ বিশ্বকাপ জয়ী জার্মানির দেখা হয়ে যাচ্ছে ইউরোর গ্রুপপর্বেই। ইউরো ২০২০-এর গ্রুপপর্বের ড্রয়ে একই সঙ্গে পড়েছে এই তিন দল। 'এফ' গ্রুপে ফ্রান্স, পর্তুগাল এবং জার্মানির সঙ্গী হবে প্লে-অফ 'এ' জয়ী দল (আইসল্যান্ড/ রোমানিয়া/ বুলগেরিয়া/ হাঙ্গেরি)।

    হাঙ্গেরির রাজধানী বুখারেস্টে ৩০ নভেম্বর রাতে অনুষ্ঠিত হয়েছে ইউরো ২০২০ গ্রুপপর্বের ড্র। ২৪টি দল ভাগ হয়েছে ছয় গ্রুপে। ইউরো বাছাইয়ের পট দুইয়ে জায়গা হয়েছিল ফ্রান্সের, আর পট তিনে ছিল পর্তুগাল। এই দুইদলের কঠিন গ্রুপে পড়া তাই একরকম আগে থেকেই নিশ্চিত হয়ে ছিল।

    গ্রুপ 'এফ'-এর মতো না হলেও 'ডি' গ্রুপেও একসঙ্গে পড়েছে ইংল্যান্ড এবং ক্রোয়েশিয়া। রাশিয়া বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের পুনর্মঞ্চায়ন হয়ে যাচ্ছে তাই। ২৪ দলের মধ্যে চারটি দল অবশ্য এখনও নির্ধারণ হয়নি। আগামী বছর মার্চে প্লে-অফের পর নিশ্চিত হয়ে যাবে সেই চারদলও।


    গ্রুপ এ : ইতালি, তুরস্ক, ওয়েলস, সুইজারল্যান্ড

    গ্রুপ বি: বেলজিয়াম, রাশিয়া, ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড

    গ্রুপ সি: নেদারল্যান্ডস, ইউক্রেন, অস্ট্রিয়া, প্লে-অফ জয়ী ‘ডি’

    গ্রুপ ডি: ইংল্যান্ড, ক্রোয়েশিয়া, চেক প্রজাতন্ত্র, প্লে-অফ জয়ী ‘সি’

    গ্রুপ ই: স্পেন, পোল্যান্ড, সুইডেন, প্লে অফ জয়ী ‘বি’

    গ্রুপ এফ: জার্মানি, ফ্রান্স, পর্তুগাল, প্লে-অফ জয়ী ‘এ’


    আগামী বছর ১২ জুন থেকে ১২ জুলাই পর্যন্ত ইউরোপের মোট ১২টি শহরে অনুষ্ঠিত হবে ইউরো ২০২০। এই কারণে এবার গ্রুপ পর্বের ড্রয়েও ভিন্নতা ছিল। স্বাগতিক দেশগুলোর স্থান আগে থেকেই নিশ্চিত হয়ে ছিল। আয়োজক দেশগুলোর ভেতর রয়েছে আজারবাইজান, ইংল্যান্ড, জার্মানি, ডেনমার্ক, জার্মানি, হাঙ্গেরি, ইতালি, স্কটল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, স্পেন, রাশিয়া। প্রতিটি দেশের একটি করে শহরে অনুষ্ঠিত হবে ইউরো। অবশ্য আয়োজক দেশ হিসেবে সরাসরি বাছাই করার সুযোগ পায়নি কোনো দেশই, বাছাইপর্ব খেলে মূল পর্ব নিশ্চিত করতে হচ্ছে দলগুলোকে।

    ১২ জুন রোমের স্টাডিও অলিম্পিকোতে ইতালি-তুরস্ক ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে এবারের ইউরো। ছয় গ্রুপ থেকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন ও রানার আপ হয়ে মোট ১২ দলের সঙ্গে তৃতীয় হওয়া সেরা চার দলও উঠবে শেষ ষোলতে। নক আউট পর্ব শুরু দ্বিতীয় রাউন্ড থেকেই, এরপর কোয়ার্টার ফাইনাল, সেমিফাইনালের পর ১২ জুলাই লন্ডনের ওয়েম্বলিতে হবে ফাইনাল ম্যাচ।  

    খুব সম্ভবত সাম্প্রতিক ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ গুলোর মধ্যে সবচেয়ে চমকপ্রদ ড্র হয়েছে এবার। প্রত্যেক গ্রুপেই দুর্দান্ত সব ম্যাচ।হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের দেখায় অপেক্ষায় আছে সমর্থকেরা। গ্রুপ ‘এ’-তে ইতালি, ওয়েলসের সাথে আছে তুরস্ক এবং সুইজারল্যান্ড। ইতালি ফেভারিট হলেও ‘আজ্জুরি’দের সঙ্গী হয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়া নিয়ে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে তিন দলের মধ্যেই। অবশ্য সুযোগ থাকবে তৃতীয় দলেরও।

    ‘এ’ গ্রুপের মত ‘বি’ গ্রুপেও হালকাভাবে নেওয়ার সুযোগ নেই কারোই। ডেনমার্ক, রাশিয়া, বেলজিয়ামের সাথে আছে প্রথমবারের মত ইউরো খেলতে আসা ফিনল্যান্ড। এই গ্রুপে ফেভারিট বেলজিয়াম, কিন্তু ‘এ’ গ্রুপের মত এখানেও শেষ ষোলতে যাওয়ার লড়াইটা হবে সমানে সমান। 

    ‘সি’ গ্রুপে ইউক্রেন, অস্ট্রিয়ার সাথে আছে ৮ বছর পর ইউরো খেলতে আসা নেদারল্যান্ডস; গ্রুপের অন্য দল আসবে প্লে-অফ থেকে (জর্জিয়া, বেলারুশ, উত্তর মেসিডোনিয়া, কসোভোর মধ্যে যেকোনো একটি দল)।

    ‘ডি’ গ্রুপে ইংল্যান্ড, ক্রোয়েশিয়ার সাথে আছে চেক প্রজাতন্ত্র; স্কটল্যান্ড, ইসরায়েল, নরওয়ে বা সার্বিয়ার মধ্যে যেকোনো এক দল। বাছাইপর্বের পর এবার মূল আসরেও একই গ্রুপে খেলবে স্পেন এবং সুইডেন।

    ‘ই’ গ্রুপে তাদের সঙ্গী রবার্ট লেভানডফস্কির পোল্যান্ড; প্লে-অফ থেকে বসনিয়া, উত্তর আয়ারল্যান্ড, স্লোভাকিয়া, আয়ারল্যান্ডের মধ্যে এক দল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে এই গ্রুপে।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন