• বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপ
  • " />

     

    ফিলিস্তিন, শ্রীলঙ্কার সঙ্গে এক গ্রুপে বাংলাদেশ

    বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে গ্রুপ 'এ'-তে বাংলাদেশের সঙ্গী হয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন ও শ্রীলঙ্কা। অন্যগ্রুপে রয়েছে পূর্ব আফ্রিকার তিনটি দেশ- বুরুন্ডি মরিশাস ও সেইশেলস। আজ শনিবার ৪ জানুয়ারি ঢাকার একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত হয়েছে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের ড্র। ৬ দেশের এই আন্তজার্তিক টুর্নামেন্ট মাঠে গড়াচ্ছে ১৫ জানুয়ারি থেকে।

    ড্রয়ের দিন-তারিখ আগেই নির্ধারণ হয়ে থাকলেও অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর নাম নিয়ে ধোঁয়াশা ছিল। ধারণা করা হচ্ছিল শ্রীলঙ্কা, লাওস, কম্বোডিয়া, মঙ্গোলিয়া, কিরগিস্তান অংশ নেবে স্বাগতিক বাংলাদেশের সঙ্গে। চূড়ান্ত তালিকায় আমন্ত্রিত দেশগুলোর ভেতর খুঁজে পাওয়া গেল কেবল শ্রীলঙ্কাকে।



    অংশগ্রহণকারী ৬ দেশের ভেতর ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে সবার চেয়ে এগিয়ে আছে ফিলিস্তিন। তবে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে তারা মূল দল পাঠাবে কী না সেটি এখনও নিশ্চিতভাবে জানা যায়নি। র‍্যাঙ্কিংয়ের হিসেবে বাংলাদেশ ৬ দলের ভেতর চতুর্থ (১৮৭), আর দক্ষিণ এশিয়ার আরেক দেশ শ্রীলঙ্কা টুর্নামেন্টে খেলবে সবার নিচে থেকে (২০৫)।

    বাংলাদেশের গ্রুপে থাকা বাকি দুই দল চমক না হলেও, গ্রুপ 'বি' বিস্ময়ের সৃষ্টি করেছে। এর আগের পাঁচবার বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে আফ্রিকা থেকে একমাত্র প্রতিনিধি হিসেবে খেলেছিল ঘানা অনুর্ধ্ব-২৩ দল। ১৯৯৯ সালে ওই একবারই অংশ নিয়েছিল তারা। এবার ছয় দেশের ভেতর তিনটিই আফ্রিকার। এদের ভেতর সেইশেলস আছে র‍্যাঙ্কিংয়ে ২০০ নম্বরে। ১৯৭৬ সালে স্বাধীন হওয়ার পর সর্বোচ্চ ১৬৮ র‍্যাঙ্কিংয়ে উঠে এসেছিল দ্বীপ রাষ্ট্রটি।



    বুরুন্ডির সর্বোচ্চ সাফল্য এসেছ গতবছরই। ২০১৯ এ মিশরে অনুষ্ঠিত আফ্রিকান কাপ অফ নেশনসেও অংশ নিয়েছে দেশটি। তবে নাইজেরিয়া, মাদাগাস্কারের সঙ্গে লড়াই করেও শেষ পর্যন্ত গ্রুপের তিনটি ম্যাচেই হেরেছিল বুরুন্ডি। র‍্যাঙ্কিংয়ে ১৭২ এ থাকা মরিশাসও একবারই অংশ নিয়েছে আফ্রিকার ফুতবল শ্রেষ্ঠত্বের টুর্নামেন্টে। সেটা অবশ্য অবহু আগের ঘটনা। ১৯৭৪ সালে কাপ অফ নেশনসে খেলাই তাদের সর্বোচ্চ সাফল্য।

    ড্র অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরাকারের অর্থমন্ত্রী আহম মোস্তফা কামাল, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী রাসেল জাহিদ হাসান রাসেল, ঢাকা উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম, বাফুফে প্রেসিডেন্ট কাজী মোহাম্মদ সালাউদ্দিন ও ভাইস প্রেসিডেন্ট আব্দুস সালাম মুর্শেদী। এই নিয়ে ষষ্ঠবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জাতির জনকের নামে এই ফুটবল টুর্নামেন্ট। দুই গ্রুপ থেকে চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স আপ উঠবে সেমিফাইনালে, এর পর জানুয়ারির ২৫ তারিখে হবে ফাইনাল। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এবারের আয়োজনে সবগুলো ম্যাচই হবে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে।