• বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপ
  • " />

     

    বাংলাদেশ-বুরুন্ডির গোল্ডকাপ সেমিফাইনাল দেখতে ঢাকায় সিজার

    হুলিও সিজার বাংলাদেশে আসছেন- এই খবর নিয়েই বেশ আগ্রহের সৃষ্টি হয়েছিল বাংলাদেশে। হযরত শাহজালাল আন্তজার্তিক বিমান বন্দরে পা ফেলার পর সিজারও টের পেলেন তাকে নিয়ে কতোখানি উন্মাদনা এখানে। ভিআইপি গেট দিয়ে বেরিয়ে যেতেই সংবাদকর্মীদের ভিড়। সেটা উপেক্ষা করারও উপায় নেই।

    "এখানে আসতে পেরে দারুণ লাগছে। ধন্যবাদ আপনাদের। এখানকার ভালোবাসা বোঝার চেষ্টা করছি আমি। আসতে পেরে রোমাঞ্চিত আমি।"- ভিড়ের ভেতর দীর্ঘ ভ্রমণ ক্লান্তি শেষেও এই কথাগুলোই বললেন সিজার। 

    সাবেক ব্রাজিল গোলরক্ষক ঢাকায় এসেছেন বঙ্গবন্ধু জন্মশতবার্ষিকীতে আয়োজিত বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের ম্যাচ দেখতে।  আগামীকাল ২৩ জানুয়ারি, বাংলাদেশ-বুরুন্ডির দ্বিতীয় সেমিফাইনালটি দেখবেন তিনি।      

     

     

    গোল্ডকাপের সেমিফাইনালের আগে ২৩ তারিখ সকালে ধানমণ্ডি ৩২ নম্বরে 'বঙ্গবন্ধু জাদুঘর' পরিদর্শনে যাবেন সিজার। এরপর বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানাবেন তিনি। দুপুরে বাফুফে নির্বাহী কমিটির সদস্যবৃন্দ এবং স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের সাথে ফটোসেশন শেষে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের সেমিফাইনাল দেখতে মাঠে হাজির হবেন সিজার। ম্যাচ শেষে রাত ১ টায় ফিরে যাবেন ইন্টার মিলানের কিংবদন্তী গোলরক্ষক। 

    ব্রাজিলের ক্লাব ফ্লামেঙ্গোর হয়ে ক্যারিয়ার শুরু করা সিজার ইতালির ক্লাব কিয়েভো ঘুরে ২০০৫ সালে ইন্টার মিলানে যোগ দিয়েছিলেন। ২০১০ সালে হোসে মরিনহোর অধীনে ট্রেবল জয়ী ইন্টার দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন ব্রাজিলিয়ান এই গোলরক্ষক। দেশের হয়েও তিনটি বিশ্বকাপে ব্রাজিল স্কোয়াডে ছিলেন সিজার। এর ভেতর ২০০৬ সালে ব্যাক আপ গোলরক্ষক হিসেবে খেললেও, ২০১০ ও ২০১৪ বিশ্বকাপে ব্রাজিলের গোলবার সামলেছেন তিনি। ২০১৩ তে কনফেডারেশন কাপ জয়ের পাশাপাশি হয়েছিলেন টুর্নামেন্টের সেরা গোলরক্ষকও। ঘরের মাঠে ২০১৪ বিশ্বকাপের পরই জাতীয় দলের হয়ে অবসরে যান সিজার।

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন