• বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্কুল ক্রিকেট
  • " />

     

    নড়বড়ে নব্বইয়ের শিকার বাগেরহাট গভমেন্ট হাইস্কুলের ইমন

    সেঞ্চুরিটা নিশ্বাস দূরত্বেই দেখতে পাচ্ছিলেন বাগেরহাট গভমেন্ট হাইস্কুলের ইমন। কিন্তু মনসংযোগ আর ধরে রাখতে পারলেন না শেষ পর্যন্ত, ফলাফল- নড়বড়ে নব্বইয়ে গিয়ে কাটা পড়লেন।  ১১টি চার ও ৩টি ছয় এর সাহায্যে ৯০ বলে করা তার ৯৭ রানের ইনিংসটি বলছে, তার সামনে কতটা অসহায় ছিল প্রতিপক্ষের বোলাররা। সঙ্গ পেয়েছেন রনি (৪২) ও সাকিবেরও (৫২*)। কুয়াশার কারণে দেরিতে শুরু হওয়ায় ৪৫ ওভারে নেমে আসা ম্যাচে শেষ পর্যন্ত বাগেরহাট গভমেন্ট হাই স্কুলের সংগ্রহ ৩৩৩ রানের পর্বতসম স্কোর। যা তাড়া করতে নেমে বাসাবাটি হাইস্কুল পড়ে ফুয়াদের বোলিং তোপের মুখে। প্রাইম ব্যাংক বঙ্গবন্ধু ন্যাশনাল স্কুল ক্রিকেটে ১ ফেব্রুয়ারি বাগেরহাট পর্যায়ের খেলায় তাই বাসাবাটি হাই স্কুলের বিপক্ষে ১৯৭ রানের বড় জয় পেয়েছে বাগেরহাট গভমেন্ট হাই স্কুল। ৪ উইকেট নিয়ে বাসাবাটি হাই স্কুলের টপ অর্ডার একাই ধসিয়ে দিয়েছেন ফুয়াদ। তারপর আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি স্কুলটির মিডল অর্ডার।

    খাগড়াছড়িতে জয় পেয়েছে টেকনিক্যাল স্কুল। কুয়াশার কারণে দেরিতে ম্যাচ শুরু হয় এখানেও। ৩৫ ওভারে নেমে আসা ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে তেওফা আইডিয়াল স্কুল সংগ্রহ করতে পারে ৫ উইকেটে ১৪৯ রান। হাতে ৫ উইকেট থাকার পরও রানের গতি বাড়াতে পারেনি তারা, যার অনেকটুকু দায় এড়াতে পারবেন না স্কুলটির ওপেনার জাহিদুল। ৭৮ বলে খেলেছেন ১৬ রানের মন্থরতম ইনিংস। বাকিদের সম্মিলিত চেষ্টার পরও তাই স্কোরটা নাগালেই থেকে যায় টেকনিক্যাল স্কুলের। মাত্র ২২.৫ ওভারেই ৪ উইকেট হারিয়ে যা টপকে যায় তারা। 

    অন্যদিকে পিরোজপুরও দেখেছে একপেশে ম্যাচ। নির্ধারিত ৫০ ওভারে প্রথমে ব্যাট করে সব কয়টি উইকেট হারিয়ে কাওকালি স্কুলের সংগ্রহ ২৫৩ রান। ফিফটি পেয়েছেন দুই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান রোহান ও সৌরভ। জবাবে মাত্র ১২২ রান করতেই গুটিয়ে যায় পারেরহাট স্কুলের ইনিংস। সর্বোচ্চ ২২ রান এসেছে ওপেনার সাকিবের ব্যাট থেকে। ব্যাট হাতে ফিফটির পর বল হাতেও সফল ছিল সৌরভ, ৪ ওভার বল করে ২০ রানেই সে তুলে নেয় ৩ উইকেট। ইয়াসিনও পেয়েছেন ৩ উইকেট, খরচ করেছেন ২৯ রান। ১৬ রানে হামিদুল নিয়েছেন দুইটি উইকেট।

    একপেশে ম্যাচ দেখেছে লালমনিরহাটও। শাবান মাহমুদের ব্যাটে রানের ফোয়ারাও চলছেই। পাখাল পুলিশ লাইনস হাই স্কুল প্রথমে ব্যাট করে সংগ্রহ করে মাত্র ৯৮ রান। আরিফ হোসেন ২৬ রানে নেন ৪ উইকেট। সাবান মাহমুদের ফিফটিতে (৫১*) মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ১৭.১ ওভারেই যা টপকে যায় চার্চ অফ গড হাইস্কুল।

    আবারও বড় রান পেয়েছেন চার্চ অফ গড স্কুলের শাবান মাহমুদ


    গাইবান্ধায় লো-স্কোরিং ম্যাচে ইসলামিয়া হাইস্কুলের ১০৯ রান তাড়া করতে নেমে মাত্র ৮৫ রানেই অলআউট হয় এনএইচ মডার্ন হাইস্কুল। ইসলামিয়ার পক্ষে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট পেয়েছেন সাজিদ, যা পেতে তাকে খরচ করতে হয় ১৭ রান। ১৭ রানে ৩ উইকেট পেয়েছেন মাহমুদ।

    দিনের অন্য ম্যাচে বরিশাল বিএম স্কুল প্রথমে ব্যাট করে অলআউট হয়েছে মাত্র ৫৪ রানে। ১৭ রান করে সর্বোচ্চ স্কোর মাহতাব শিকদারের, তিনি ছাড়া দুই অংক ছুঁতে পারেননি আর কেউই। মাত্র ৮.৩ ওভারেই ৪ উইকেট হারিয়ে যা টপকে যায় চরবারিয়া হাইস্কুল।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন