• বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্পিয়নশিপ
  • " />

     

    তৃতীয় দিনে মাঠে গড়াল ফুটবল ও ক্রিকেট

    বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্পিয়নশিপের তৃতীয় দিনে আজ শুরু হয়েছে ক্রিকেট, ফুটবল এবং টেবিল টেনিস ইভেন্ট। ছেলেদের ক্রিকেটে প্রথম রাউন্ডের ম্যাচে ফারইস্ট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ৬৭ রানে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটিকে হারিয়েছে। অপর ম্যাচগুলোতে আইইউবিএটি ১০ উইকেটে নর্দার্ন ইউনিভার্সিটিকে, ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটি ৭ উইকেটে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিকে হারিয়েছে। এদিকে ইউল্যাবের মাঠে বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন এন্ড টেকনোলজি ২৫ রানে মিলেনিয়াম ইউনিভার্সিটিকে পরাজিত করেছে। গ্রিন ইউনিভার্সিটি, হামদর্দ ইউনিভার্সিটি এবং বরেন্দ্র ইউনিভার্সিটি নিজ নিজ ম্যাচে ওয়াকওভার পেয়ে পরের রাউন্ডে উত্তীর্ণ হয়েছে।

    মেয়েদের হ্যান্ডবলের দুটি সেমিফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়েছে আজ। প্রথম সেমিফাইনালে যশোর ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজি ৯-৪ গোলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে হারিয়েছে। অপর সেমিতে গণ বিশ্ববিদ্যালয় ১৪-৩ গোলে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিকে পরাজিত করে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে। ছেলেদের হ্যান্ডবলে প্রথম রাউন্ডের ম্যাচে যশোর ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজি ২৮-১৪ গোলে শাহজালাল ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজির বিপক্ষে জয় পেয়েছে। ফারইস্ট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এবং ইসলামিক ইউনিভার্সিটি যথাক্রমে পুণ্ড্র ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজি ও বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিপক্ষে ওয়াকওভার পেয়ে পরের রাউন্ডে জায়গা করে নিয়েছে।

    ছেলেদের টেবিল টেনিসে আজ প্রথম রাউন্ডের ১৩ টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ম্যাচগুলোতে জয় পেয়েছে নটরডেম ইউনিভার্সিটি, যশোর ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজি, খুলনা ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি, ইসলামিক ইউনিভার্সিটি, কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, সোনারগাঁ ইউনিভার্সিটি, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এবং ইউনিভার্সিটি অব সাউথ এশিয়া।

    পোলারের পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের সর্ববৃহৎ এই ক্রীড়া প্রতিযোগিতা এবার মুজিববর্ষে হচ্ছে আরও বড় পরিসরে।  ১০১টি বিশ্ববিদ্যালয়ের অংশগ্রহণে এবারের আসরে লড়বে প্রায় ৬ হাজারের কাছাকাছি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা। এদের মধ্যে নারী ক্রীড়াবিদ থাকছেন ১২০০ জন। 

    এবারের আসরে সব মিলে থাকছে ১২টি ইভেন্ট। অ্যাথলেটিকস, ফুটবল, ক্রিকেট, বাস্কেটবল, টেবিল টেনিস, ব্যাডমিন্টন, ভলিবল, সাইক্লিং, সাঁতার, হ্যান্ডবলের সঙ্গে এবার নতুন করে যোগ হচ্ছে দাবা ও কাবাডি। সব মিলে ৬৮৭টি পদকের জন্য হবে ৪২টি পৃথক পৃথক প্রতিযোগিতা। এখান থেকে একটি বিশ্ববিদ্যালয় পাবে চ্যাম্পিয়নের স্বীকৃতি। আর একজন করে পুরুষ ও নারী খেলোয়াড় পাবে সেরার পুরস্কার। দেশের ১৩টি বিশ্ববিদ্যালয়ে হবে এবারের আসর।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন