• নিউজিল্যান্ডের অস্ট্রেলিয়া সফর
  • " />

     

    মারা গেলেন নিউজিল্যান্ডের সাবেক উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান জক এডওয়ার্ডস

    আলাদা করে নজর কাড়ত তার গড়নটা, নজর কাড়ত তার বড় শট খেলার সামর্থ্যও। সত্তর ও আশির দশকে নিউজিল্যান্ডে জক এডওয়ার্ডস বিখ্যাত ছিলেন তার ‘বিগ-হিটিং’য়ের জন্যই। সাবেক এই ব্ল্যাকক্যাপস উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান ৬৪ বছর বয়সে মারা গেছেন ৬ এপ্রিল। 

    অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দেশের মাটিতে অভিষেক হয়েছিল টেস্টে, খেলেছিলেন স্পেশালিস্ট ব্যাটসম্যান হিসেবে। অকল্যান্ডে দ্বিতীয় টেস্টে নিজের সামর্থ্য দেখিয়েছিলেন, প্রথম ইনিংসে ৪৭ বলে ১১ চারে করেছিলেন ৫১ রান, ডেনিস লিলি, ম্যাক্স ওয়াকারদের বোলিং আক্রমণের বিপক্ষে।
     


    ইংল্যান্ড এসেছিল এরপর, এডওয়ার্ডস করেছিলেন দুইটি ফিফটি, এর মাঝে একটি ছিল ৬৭ বলে ৫৪ রানের ইনিংস। এরপর ইংল্যান্ডে উইকেটকিপার হিসেবে গিয়েছিলেন তিনি, তবে ধারাভাষ্যকাররা তার উইকেটকিপিং সামর্থ্যের সমালোচনা করেছিলেন। তিন বছর পর আবার দলে ফিরেছিলেন এডওয়ার্ডস, দেশের মাটিতে ভারতের বিপক্ষে। তবে ততদিনে দৃশ্যপটে ইয়ান স্মিথ এসেছেন, তাকে জায়গা করে দিতে হয়েছিল এডওয়ার্ডসকে। 

    ৮ টেস্টের শেষটি খেলেছিলেন সেবারই, এর মাঝে খেলেছিলেন ৬টি ওয়ানডেও। তবে সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টসের হয়ে খেলে গেছেন নিয়মিত, প্রায় ১১ বছরের ক্যারিয়ারে মোট প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন ৯২টি।

    তার মৃত্যুতে শোকবার্তা দিয়েছে সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্ট ক্রিকেট। ফেসবুকে তারা লিখেছে, “সিডির দলের সবাই জক এডওয়ার্ডসের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছে। তিনি নেলসন ক্রিকেটের কিংবদন্তী ছিলেন, নিউজিল্যান্ড ব্ল্যাকক্যাপসের হয়ে যিনি ৮ টেস্ট ও ৬ ওয়ানডে খেলেছে। সেন্ট্রাল স্ট্যাগসের (সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্ট) হয়ে ৬৭টি প্রথম শ্রেণি ও ৩১টি ওয়ানডে খেলেছিলেন। নেলসনের হক কাপের দারুণ যুগের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি, ১৯৭৯ থেকে ১৯৮৩ সালের মধ্যে ১৪টি ম্যাচজুড়ে বিস্তৃত ছিল যা, অন্য সব অর্জনের মধ্যে। রেস্ট ইন পিস, জক।”