• ক্রিকেট, অন্যান্য
  • " />

     

    ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনাল : স্বচ্ছতা নিয়ে সংশয় নেই আইসিসির

    ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনালের ‘স্বচ্ছতা নিয়ে কোনও সংশয় নেই’ আইসিসির, বর্তমান অবস্থায় এ ম্যাচ নিয়ে কোনও রকম তদন্ত করবে না বলেও জানিয়েছে তারা। সম্প্রতি শ্রীলঙ্কার সাবেক ক্রীড়ামন্ত্রীর তোলা অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করা হয়েছে এ ম্যাচ নিয়ে। অরভিন্দ ডি সিলভা, কুমার সাঙ্গাকারা, উপুল থারাঙ্গাকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ফিক্সিংয়ের প্রমাণ পাওয়া যায়নি, এমন সিদ্ধান্তে এসে তদন্ত বন্ধও করে দেওয়া হয়েছে। এবার এ ব্যাপারে নিজেদের অবস্থান পরিস্কার করলো আইসিসি। 

    আইসিসির দুর্নীতিবিরোধী ইউনিটের জেনারেল ম্যানেজার অ্যালেক্স মার্শাল মুম্বাইয়ের ভারত-শ্রীলঙ্কার সেই ফাইনাল নিয়ে ওঠা অভিযোগের প্রেক্ষিতে দেওয়া অফিশিয়াল এক বিবৃতিতে বলেছেন, যে অভিযোগ আনা হয়েছে, তার ভিত্তিতে তাদেরকে কোনও প্রমাণ দেওয়া হয়নি, তদন্ত করার ব্যাপারেও পর্যাপ্ত নয় সেসব। শ্রীলঙ্কার কারও কাছ থেকে কোনও চিঠিও পাননি তারা। 

    “২০১১ আইসিসি মেনস ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনাল নিয়ে সম্প্রতি ওঠা অভিযোগ আইসিসির ইনটেগ্রিটি ইউনিট খতিয়ে দেখেছে। এই মুহুর্তে এই অভিযোগের সঙ্গে আমাদের এমন কোনও প্রমাণ দেওয়া হয়নি, যা এটিকে সমর্থন করে, অথবা যার ভিত্তিতে আইসিসির দুর্নীতি দমন ধারা অনুযায়ী আমরা তদন্ত করতে পারবো। শ্রীলঙ্কার তখনকার ক্রীড়ামন্ত্রীর কাছ থেকে কোনও চিঠি আইসিসির কাছে আসেনি। সিনিয়র কর্মকর্তারা এটা নিশ্চিত করেছেন, এর আগেও এমন কিছু পাননি তারা, যার ভিত্তিতে তদন্ত করা হবে। ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনালের স্বচ্ছতা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করার কোনও কারণ নেই আমাদের”, বিবৃতিতে বলেছেন মার্শাল।  

    ২০১১ সালের ২ এপ্রিলের ফাইনালে রানতাড়ায় শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে ২৮ বছর পর আবারও ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতেছিল ভারত। শ্রীলঙ্কার তখনকার ক্রীড়ামন্ত্রী দাবি করেছেন, সে ম্যাচে ইচ্ছা করে হেরে গিয়েছিল কুমার সাঙ্গাকারার দল। 

    শুক্রবার তদন্ত শেষ করে সাঙ্গাকারাদের অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেওয়ার পর তদন্তকারী কর্মকর্তা জগথ ফনসেকোও বলেছিলেন, আইসিসি এ ব্যাপারে তদন্ত করার কোনও ইঙ্গিত তাদেরকে দেয়নি। 

    মার্শাল বলছেন, প্রমাণ পেলেই শুধু তারা নিজেদের বর্তমান অবস্থান থেকে সরে আসবেন, “আমরা এরকম সব অভিযোগই খুবই সতর্কতা ও গুরুত্ব সহকারে নিই। যদি এসব দাবির সঙ্গে কোনও প্রমাণ পাই, তাহলে আমরা নিজেদের বর্তমান অবস্থান পর্যবেক্ষণ করবো। 

    “যদি সেই ম্যাচ অথবা যে কোনও ম্যাচে ফিক্সিং নিয়ে কোনও প্রমাণ কারও কাছে থাকে, তাহলে আমরা তাদেরকে আইসিসির ইনটেগ্রিটি দলের সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করছি।” 


     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন