• অস্ট্রেলিয়ার ইংল্যান্ড সফর ২০২০
  • " />

     

    'সীমিত ওভারের ক্রিকেটে রশিদ বিশ্বসেরা'

    দুজন বেশ ভাল বন্ধু। তবে এদিন মইন ছিলেন রশিদের অধিনায়ক। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজে অইন মরগানের অনুপস্থিতিতে ইংল্যান্ডের অধিনায়কত্ব করছেন মইন। তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচ জিতে সিরিজ নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল ইংল্যান্ডের। তবে মঙ্গলবার শেষ ম্যাচে ইংল্যান্ডকে পাঁচ উইকেটে হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। 

    তবে ম্যাচ হারলেও ঠিকই ঝলক দেখিয়েছেন রশিদ। সিরিজের প্রতি ম্যাচেই নিজের স্পেলের শেষ বলে উইকেট পেয়েছেন রশিদ। অধিনায়ক মরগান হোক বা মইন, তাদের অন্যতম অস্ত্র, বিশেষ করে মাঝের ওভারগুলিতে রশিদই। সেই রশিদকে এবার সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ‘বিশ্বসেরা’ই বললেন তার মইন।
     


    ১৪৬ রানের মাঝারি লক্ষ্য তাড়া করতে নামা অস্ট্রেলিয়াকে বেশ বিপদে ফেলেছিলেন রশিদ। অস্ট্রেলিয়ার টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানকে আউট করেছেন তিনি। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল (৬ রান), অজি অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ এবং স্টিভেন স্মিথকে ফিরিয়েছেন তিনি, ৪ ওভার বোলিং করে মাত্র ২১ রান খরচায়।

    তাই ম্যাচ শেষে মঈনের আক্ষেপ, “যদি রশিদের আরও দুয়েকটা ওভার থাকত। তার বল বুঝা এবং খেলা দুটোই কঠিন। সে তার বোলিংয়ে অত্যন্ত দক্ষ। আমাদের জন্য তার বোলিং খুবই গুরুত্বপূর্ণ, আর যখন সে এভাবে বোলিং করে, তখন তাকে বিশ্বসেরা বলেই মনে হয়। সে দীর্ঘ সময় ধরে ধারবাহিকভাবে দারুণ বোলিং করে যাচ্ছে। আর সে জন্যই সীমিত ওভারের ক্রিকেটে সে অন্যতম সেরা উইকেট শিকারী।”

    দীর্ঘ আড়াই মাস পরিবার থেকে দূরে থেকেছেন জস বাটলার। পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে ছুটি নেওয়ায় অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে খেলেননি তিনি। তবে আগের দুই ম্যাচে দারুণ ব্যাটিং করে ইংলিশদের সিরিজ জয়ে অবদান রেখেছেন বাটলার। রশিদ ছাড়াও উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান বাটলারের জন্যও তাই প্রশংসা শেষ ম্যাচে ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মঈনের কণ্ঠে, “সে দারুণ, বিশ্বমানের খেলোয়াড়--- দারুণ নেতা, এই ম্যাচে খেললে সেই অধিনায়ক হত। বাটলার আমাদের খেলার ধরনই বদলে দিয়েছে। সে যদি রান নাও করে, তাকে ড্রেসিং রুমে পাওয়াটাও দারুণ ব্যাপার। সে দলের জন্য অনেক কিছু করেছে।”

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন