• লা লিগা
  • " />

     

    নভেম্বরে আন্তর্জাতিক ফুটবল ফিরছে বাংলাদেশে

    নভেম্বরের ফিফা ফ্রেন্ডলির উইন্ডোতে নেপালের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে আন্তজার্তিক ফুটবল ফিরছে বাংলাদেশে। বাফুফের পক্ষ থেকে প্রস্তাব পাঠানোর পর অল অল নেপাল ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে সাড়া মিলেছে। দিন তারিখ এখনও চূড়ান্ত না হলেও নভেম্বরের ১১-১৯ তারিখের ভেতর নেপালের বিপক্ষে দুইটি ম্যাচ খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

    বাফুফে জানিয়েছে তাদের প্রস্তাবে মৌখিকভাবে সাড়া দিয়েছে নেপাল। তবে নেপালে করোনাভাইরাসের কারণে এখনও দেশটির সরকারের পক্ষে থেকে অনুশীলনের অনুমতি মেলেনি। সেই অনুমতিও আগামী দুই, একদিনের মধ্যে পেয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে নেপাল ফুটবল দলের।


    করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে ফুটবল ম্যাচ আয়োজনের আগে অবশ্য দুই দেশের ফুটবল ফেডারেশনকে জোর দিতে হবে হবে খেলোয়াড়দের স্বাস্থ্যসুরক্ষার দিকে। ম্যাচের দিন তারিখ নির্ধারণের পাশাপাশি ফ্লাইট ব্যবস্থাপনা, কোয়ারেন্টিন, আলাদা অনুশীলনের ব্যবস্থাসহ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো নিয়েই ঐক্যমতে পৌঁছাতে হবে দুই দেশের ফুটবল ফেডারেশনকে। 

    সেপ্টেম্বরে প্রকাশিত সবশেষ ফিফা র‍্যাঙ্কিং অনুযায়ী নেপালের অবস্থান ১৭০, আর বাংলাদেশ রয়েছে ১৮৭ তে। ২০১৮ সালে দুই দল সবশেষ মুখোমুখি হয়েছিল সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে। সে ম্যাচে নেপালের কাছে ২-০ গোলে হেরে সাফের গ্রুপ পর্ব থেকেই আরও একবার বিদায় নিয়েছিল স্বাগতিক বাংলাদেশ।


    গত মার্চে করোনাভাইরাসের কারণে বাংলদেশে ফুটবল স্থগিত হয়ে যাওয়ার পর আর কোনো আন্তজার্তিক ম্যাচ খেলার সুযোগ হয়নি বাংলাদেশের। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোও এই সময়ে কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচে অংশ নেয়নি। জেমি ডের বাংলাদেশ সবশেষ জানুয়ারিতে বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপে অংশ নিয়েছিল। এ বছর বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ বাছাইয়ে বাংলাদেশের ৪টি ম্যাচ খেলার কথা থাকলেও সেগুলোও স্থগিত হয়ে গেছে আরও আগেই। ডিসেম্বর নাগাদ ফেডারেশন কাপ দিয়ে ঘরোয়া ফুটবলও ফেরার কথা রয়েছে। তবে এর আগে আন্তজার্তিক ফুটবলেই ফিরছে বাংলাদেশ।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন