• বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ ২০২০
  • " />

     

    বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ : কোন গ্রেডে কে, কোন দলে কয়জন ও আরও যা জানা প্রয়োজন

    বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ : কোন গ্রেডে কে, কোন দলে কয়জন ও আরও যা জানা প্রয়োজন    

    প্রেসিডেন্টস কাপের পর নভেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহে শুরু হওয়ার কথা বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ। পাঁচটি দল অংশ নিচ্ছে এবারের আসরে-  বেক্সিমকো ঢাকা, গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম, মিনিস্টার রাজশাহী, জেমকন খুলনা ও ফরচুন বরিশাল। বৃহস্পতিবভার দুপুর ১২টায় রাজধানীর একটি হোটেলে হবে ড্রাফট।

     

    কোন গ্রেডে কারা?

    ১৫৭ জন ক্রিকেটারকে এ, বি, সি, ডি এই চারটি গ্রুপে ভাগ করা হয়েছে। এ গ্রুপে আছেন সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল, মাহমুদউল্লাহ ও মোস্তাফিজুর রহমান। বি গ্রুপে আছেন ২১ জন, যার মধ্যে আছেন ইমরুল, তাসকিনসহ জাতীয় দলের অনেকে। এই গ্রুপে জাতীয় দলে এখনো অভিষেক হয়নি এমন আছেন একজনই- কদিন আগে প্রেসিডেন্টস কাপে আলো ছড়ানো ইরফান শুক্কুর। সাব্বির, বিজয়সহ ২৩ জন আছেন সি গ্রুপে। আর ডি গ্রুপে আছেন ১০৮ জন। তবে নেই মাশরাফি বিন মুর্তজা, বিসিবির ফিটনেস পরীক্ষায় অংশ নেননি তিনি। থাকছে না কোনো বিদেশী ক্রিকেটারও।

     

    কোন গ্রেডের বেতন কত?

    গ্রেড ওয়ানে থাকা সাকিব, তামিম, মুশফিকরা পাবেন ১৫ লাখ টাকা। গ্রেড বি তে থাকা ক্রিকেটাররা পাবেন ১০ লাখ, সি তে থাকা ক্রিকেটাররা ৬ লাখ ও ডি তে থাকা ক্রিকেটাররা ৪ লাখ।

     

    কীভাবে হবে ড্রাফট

    ড্রাফট হবে বিপিএলের নিয়মেই। লটারিত ভিত্তিতে দলগুলো ডাকার সুযোগ পাবে। প্রথম রাউন্ডে যে দল সবার আগে ডাকবে, দ্বিতীয় রাউন্ডে তারা ডাকবে সবার পরে। আবার প্রথম রাউন্ডে যারা সবার পরে ডাকবে, পরের বার তারা ডাকবে সবার আগে। এভাবে ক্রম ঠিক করা হবে।

     

    কোন দলে কয়জন

    সব মিলে আটটি রাউন্ড হবে, যার মানে প্রতিটি দল সর্বোচ্চ ১৬ জন ক্রিকেটারকে দলে নিতে পারবে। এর মধ্যে গ্রেড ওয়ান একজন, গ্রেড বি চারজন করে, গ্রেড সি পাঁচ জন ও গ্রেড ডি ছয়জন করে রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। সব মিলে একটি দলের জন্য বরাদ্দকৃত ১ কোটি ৯ লাখ টাকার দায়িত্ব নেবে বিসিবি। কোনো দলের বেতন এর বেশি হয়ে গেলে সেই দায়িত্ব তাদেরই নিতে হবে।  

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন