• চ্যাম্পিয়নস লিগ
  • " />

     

    রোনালদোদের আশা বাঁচিয়ে রাখলেন কিয়েসা

    রোনালদোদের আশা বাঁচিয়ে রাখলেন কিয়েসা    

    জুভেন্টাসের সঙ্গে এর আগের পাঁচ দেখায় কখনো জিততে পারেনি পোর্তো। এবার সেই নিজেদের মাঠে সেই অসাধ্যই সাধন করল তারা। তবে শেষ মুহূর্তে ফেদেরিকো কিয়েসা গোল করে আশাটা বাঁচিয়ে রেখেছেন জুভেন্টাসের। ২-১ গোলে হারের পরও জুভেন্টাস তাই কিছুটা ভরসা নিয়ে ঘরের মাঠের জন্য তৈরি হতে পারে।

    ম্যাচের প্রথম মিনিটেই অবশ্য গোল খেয়ে বসে জুভেন্টাস। রদ্রিগো বেন্টাকার গোলরক্ষক শেজনিকে ব্যাক পাস দিতে গিয়ে বল তুলে দেন মেহদি তারেমির পায়ে। অত কাছ থেকে গোল করতে ভুল করেননি পোর্তোর ইরানি স্ট্রাইকার। ২০১৩ সালের পর চ্যাম্পিয়নস লিগে এত দ্রুত গোল আর হয়নি।

    শুরু থেকেই প্রেসিং করে জুভেন্টাসকে চেপে ধরে পোর্তো। সেভাবেই আরেকটি গোলও আদায় করে নিচ্ছিল, এবার শেজনি বল তুলে দেন অলিভিয়েরার পায়ে। কিন্তু সেই সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি অলিভিয়েরা। প্রথমার্ধের মতো দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই আবার গোল করে বসে পোর্তো। উইলসন মানাদা বল নিয়ে ঢুকে পরেছিলেন ভেওত্রে, তার কাটব্যাক থেকে গোল করে এগিয়ে দেন মুসা মারেগা। এর মধ্যে আবার জুভেন্টাস অধিনায়ক জর্জো কিয়েলিনি চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন, শেজনি আরেকটি ভালো সেভ করে ঠেকিয়েছেন অলিভিয়েরাকে।

    যখন মনে হচ্ছিল জুভেন্টাসকে কোনো গোল ছাড়াই ফিরে যেতে হবে, তখন শেষ ২০ মিনিটে জেগে ওঠার চেষ্টা করে তারা। ৮২ মিনিতে কিয়েসা ডান পায়ের দারুণ এক ফিনিশে পেয়ে যান গোলটা। রোনালদো ছাড়া নকআউটে জুভেন্টাসের হয়ে সর্বশেষ গোল পেয়েছিলেন মাতুইদি, সেটাও সেই ২০১৮ সালে। তবে এই গোলটা জুভেন্টাসকে দিয়েছে পরের লেগের জন্য তৈরি হওয়ার উপলক্ষ।

    ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো কাল অবশ্য সেরকম কিছু করতে পারেননি। ম্যাচের বেশির ভাগ সময় তাকে বোতলবন্দি করে রেখেছিল পোর্তো। যোগ করা সময়ে অবশ্য একটা পেনাল্টির আবেদন ছিল, তবে সেটা নাকচ করে দিয়েছেন রেফারি। অবশ্য রোনালদোর এখনো সুযোগ আছে ব্যবধান গড়ে দেওয়ার। চ্যাম্পিয়নস লিগের নকআউটের দ্বিতীয় লেগ, দল পিছিয়ে- এর চেয়ে বেশি মোটিভেশন বোধ হয় দরকার নেই তার!

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন