• অন্যান্য
  • " />

     

    পন্টিংয়ের অস্ট্রেলিয়াকে ছাড়িয়ে ল্যানিংয়ের অস্ট্রেলিয়ার নতুন বিশ্বরেকর্ড

    পন্টিংয়ের অস্ট্রেলিয়াকে ছাড়িয়ে ল্যানিংয়ের অস্ট্রেলিয়ার নতুন বিশ্বরেকর্ড    

    টানা ওয়ানডে জয়ে অস্ট্রেলিয়ার ছেলেদের ১৮ বছরের পুরোনো রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার মেয়েরা। নিউজিল্যান্ড উইমেনের বিপক্ষে মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে জিতে এই রেকর্ড গড়েছে অস্ট্রেলিয়া উইমেন। এখন পর্যন্ত ২২ ম্যাচে অপরাজিত মেগ ল্যানিংয়ের দল, আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে এর আগে টানা ২১ ম্যাচ জয়ের রেকর্ড ছিল রিকি পন্টিংয়ের অস্ট্রেলিয়ার।

    ২০১৮ সালের মার্চে ভদোদাদারায় ভারতের বিপক্ষে সিরিজের ১ম ওয়ানডে থেকে ২০২১ সালের এপ্রিলে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ-- তিন বছরেরও বেশি সময় ধরে অপরাজিত এখনও অস্ট্রেলিয়া উইমেন। এ সময়ে দ্বিপক্ষীয় সিরিজ তারা খেলেছে ভারতের পর পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, শ্রীলঙ্কা, নিউজিল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডেরআ (চলমান) বিপক্ষে।


    মেগান শুটের ৪, নিকোলা ক্যারির ৩ উইকেটে নিউজিল্যান্ডকে ২১২ রানে অল-আউট করার পর অ্যালিসা হিলি, এলিস পেরি ও অ্যাশলি গার্ডনারের ফিফটিতে ৬ উইকেটের জয় পেয়েছে তারা নিউজিল্যান্ড উইমেনের বিপক্ষে।

    গত অক্টোবরে দেশের মাটিতে নিউজিল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশ করার পরই পন্টিংয়ের অস্ট্রেলিয়ার রেকর্ডকে ছুঁয়ে ফেলেছিল অস্ট্রেলিয়া উইমেন। তবে পরের সিরিজের জন্য প্রায় ৬ মাস অপেক্ষা করতে হলো তাদের। 

    পন্টিংরা অবশ্য এ রেকর্ড গড়েছিলেন প্রায় ৫ মাসের ব্যবধানে। ২০০৩ সালের ১১ জানুয়ারি হোবার্টে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের পর অস্ট্রেলিয়া জিতেছিল টানা ২১ ম্যাচ, এর মাঝে ছিল বিশ্বকাপে অপরাজিত চ্যাম্পিয়নও হয়েছিল তারা। সেই অস্ট্রেলিয়ার আগে ওয়ানডেতে টানা জয়ের রেকর্ড ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের- ১৯৮৪-৮৫ সালে তারা জিতেছিল টানা ১১ ম্যাচ। অস্ট্রেলিয়ার সেই টানা ২১ ম্যাচ জয়ের কাছাকাছি এরপর ছেলেদের ক্রিকেটে সর্বশেষ গিয়েছে পাকিস্তান, ২০০৭-০৮ সালে তারা জিতেছিল টানা ১২ ম্যাচ। 

    মেয়েদের ওয়ানডেতে এ রেকর্ড ছিল অস্ট্রেলিয়ারই, ১৯৯৭ থেকে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত তারা জিতেছিল টানা ১৭ ম্যাচ। 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন