• বাংলাদেশের জিম্বাবুয়ে সফর
  • " />

     

    অবশেষে ব্যাটসম্যান সাকিবে জিতল বাংলাদেশ

    অবশেষে ব্যাটসম্যান সাকিবে জিতল বাংলাদেশ    

    বল হাতে পারফর্ম করছেন নিয়মিতই, আগের ম্যাচেও নিয়েছেন উইকেট। তবে ব্যাটসম্যান সাকিব আল হাসানকে যেন ঠিক খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। বহুদিন পর সেই সাকিবকে পাওয়া গেল হারারেতে। দলের বিপদে বাকিদের আসা যাওয়ার মিছিলে চওড়া হলো তার ব্যাট। সাইফ উদ্দিনকে নিয়ে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়লেন। ৩ উইকেটের জিয়ে তাই সিরিজও নিশ্চিত করল বাংলাদেশ। 

    ২০১৯ বিশ্বকাপে ব্যাটসম্যান সাকিব প্রায় অতিমানব হয়ে গিয়েছিলেন। এরপর রান পেলেও ঠিক ধারাবাহিক ছিলেন না, আবার তিন অংকের দেখাও পাননি। আজ সেঞ্চুরিটা ৪ রানের জন্য পাওয়া হয়নি, তবে সেটা নিয়ে সাকিবের খুব একটা আফসোস থাকার কথা নয়। তিন নম্বরে নেমে খেলাটা শেষ করে এসেছেন, বিশেষ করে দলের বিপর্যয়ের সময়ে, সেটা বাড়তি তৃপ্তি দেবে সাকিবকে। তামিমের আউটের পর যখন নেমেছিলেন, বাংলাদেশের সামনে ২৪০ রান খুব বড় মনে হচ্ছিল না। 

    কিন্তু ব্যাটসম্যানদের উইকেট বিলিয়ে দিয়ে আসার প্রতিযোগিতায় দ্রুতই একা হয়ে গেলেন সাকিব। লিটন গেলেন, মিঠুন আরও একবার দেখালেন কেন তার ওপর ভরসা করা কঠিন। মোসাদ্দেক সুযোগ কাজে লাগাতে পারলেন না আরও একবার। মাহমুদউল্লাহ এসে হাল ধরলেন সাকিবের সাথে। ৭৫ রানে ৪ উইকেট হারানোর পর পঞ্চম উইকেটে এলো ৫৫ রান। কিন্তু মাহমুদউল্লাহও কাট করতে গিয়ে উইকেট দিয়ে এলেন, আরও বিপদে বাংলাদেশ। 

    মিরাজের সামনে সুযোগ ছিল ব্যাটসম্যান হিসেবে নিজেকে আরেকটু প্রমাণ করার। উঠে এসেছিলেন সাতে। কিন্তু সুযোগটা হারালেন। আফিফও বেশিক্ষণ টিকতে পারলেন না, ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে খেলতে গিয়ে উইকেট দিয়ে এলেন। ৭ উইকেট হারিয়ে ১৭৩ রানে তখন কাঁপছে বাংলাদেশ। 

    সাইফ উদ্দিন আর সাকিব এরপর ভুল করলেন না। তেমন কোনো বড় শট না খেলেই দুজন সিঙ্গেলস আর ডাবলস নিয়ে এগিয়ে গেলেন। এর মধ্যে অবশ্য দুজনেই হাফ চান্স দিয়েছেন। কঠিন ক্যাচ রাখতে পারেননি চাকাভা, রান আউটের সুযোগও মিস হয়েছে। সাকিব ৫০ পেয়েছিলেন ৫৯ বলেই। সেঞ্চুরির সম্ভাবনাও ছিল। তবে সেটা হয়নি। তারপরও ২০১৯ বিশ্বকাপের পর এটাই সাকিবের সর্বোচ্চ স্কোর। এই ৯৬ রানে অনেক সেঞ্চুরির চেয়েও বেশি তৃপ্তি পাওয়ার কথা তার। 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন