• " />

     

    পতাকা ঝুলিয়ে শ্রীলঙ্কার প্রতিবাদ?

    একটা নো বল। একটা বোল্ড। একটা নট-আউট। বিতর্ক উসকে দিল নতুন করে! 

     

    লর্ডস টেস্টে বৃষ্টিবিঘ্নিত চতুর্থ দিনের খেলা চলে তখন। নুয়ান প্রদীপের নীচু হয়ে যাওয়া বলে বোল্ড হলেন অ্যালেক্স হেলস, কিন্তু প্রদীপ উদযাপনের সুযোগ পেলেন কই! আম্পায়ার রড টাকার যে ততক্ষণে একহাত প্রসারিত করেছেন, প্রদীপকে ডেকেছেন 'নো'! তবে রিপ্লে দেখালো ভিন্ন কিছু। একটু ভিন্ন কিছু। প্রদীপের ফ্রন্ট ফুটের বুটের হিলের কিছু অংশ ছিল পপিং ক্রিজের ভেতরেই! সামান্য অংশ, তবে রিপ্লেতে তাই দেখাচ্ছিল 'তাৎপর্যপূর্ণ'। আইন অনুযায়ী, একবার নো ডাকলে আম্পায়ার তা বদলাতে পারেন না। রিপ্লে দেখে যদি টাকার কিছু করতেও চাইতেন, সুযোগ ছিল না। 

     

    ঘটনার পরপরই লর্ডসের 'অ্যাওয়ে' ড্রেসিংরুমের ব্যালকনির রেলিঙয়ে ঝুলতে দেখা গেল একটা শ্রীলঙ্কান পতাকা। লর্ডসের ভেতরে কোনো ধরনের পতাকা বা ব্যানার বহন নিষিদ্ধ, তবে কেন শ্রীলঙ্কার এই পতাকা? তবে কি প্রদীপের ওই 'না হওয়া' নো বলের প্রতিবাদেই? ধারণা করা হচ্ছে এমনই। শ্রীলঙ্কান ম্যানেজমেন্ট থেকে অফিসিয়ালি অবশ্য এখনও কিছু জানা যায়নি। ডেইলি মেইল জানাচ্ছে, শ্রীলঙ্কান কর্মকর্তারা ইতোমধ্যেই ম্যাচ রেফারি অ্যান্ডি পাইক্রফটের কাছে তাঁদের বক্তব্য বলে এসেছেন। 

     

    প্রদীপের সেই 'নো বল' 

     

    তবে ড্রেসিংরুমের ব্যালকনি থেকে পতাকাটা সরিয়ে নেয়া হয়েছে ৪৫ মিনিট পর। এমসিসিই শ্রীলঙ্কান কর্মকর্তাদের পতাকাটি সরিয়ে নিতে বলেছেন। 

     

    তবে এ ঘটনা আলোচনার সূত্রপাত করেছে। এখনকার দিনে, ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার পর আম্পায়াররা নো বল দেখেন আরেকবার, নো বল হলে ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়েও আনেন। তবে কেন বোলারদের ক্ষেত্রে এমন হবে না? নো বল ডাকার পর যদি দেখা যায়, আদতে তা ছিল না, তবে কেন পরিবর্তন করা হবে না নো বলের সিদ্ধান্ত! ক্রিকেটের এই 'আইনের' পেছনের একটা কারণ হতে পারে, কোনো ব্যাটসম্যান যদি আম্পায়ারের নো-বলের ডাক শুনে মানসিকতা পরিবর্তন করে শট খেলেন? যেটা আসলে তাঁর পরিকল্পনায় ছিল না! স্কাই স্পোর্টসের সঙ্গে আলোচনায় অংশ নিয়েছিলেন মাইকেল আথারটন, ডেভিড গাওয়ার ও মাহেলা জয়াবর্ধনে। 

     

    অবশ্য বাস্তবে তা খুব একটা সম্ভব নয়, পেস বোলারদের ক্ষেত্রে তো আরও নয়। স্পিনারদের ক্ষেত্রে ব্যাটসম্যানরা একটু বেশী সময় পেতে পারেন, তবে সেটাও খুব বেশী প্রভাব ফেলে না! জয়াবর্ধনে বলছেন, আইসিসির ক্রিকেট কমিটিতে আলোচনা হয়েছে এ নিয়ে। যেহেতু নো বলের ক্ষেত্রে সেই পুরোনো নিয়ম মানা হচ্ছে না, ব্যাটসম্যানদেরকে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে, একই সুবিধা দেয়া উচিৎ বোলারদের ক্ষেত্রেও। 

    সে সুবিধা বোলাররা পাবেন কিনা, বলবে সময়। তবে আপাতত আলোচনায় নুয়ান প্রদীপের সেই 'নো বল', আর শ্রীলঙ্কান ড্রেসিংরুমের সামনের ব্যালকনির ওই পতাকা! 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন