• ইংলিশ লিগ কাপ
  • " />

     

    শোয়েইনির ফেরার রাতে আর্সেনালের হার

    ২৫৫ দিন। মাসের হিসেবে প্রায় আট মাস। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের লাল জার্সি গায়ে এর মধ্যে আর নামা হয়নি। এই মৌসুমের শুরু থেকেই ছিলেন ব্রাত্য, বাস্তিয়ান শোয়েনস্টাইগারের ইউনাইটেড অধ্যায়্রের শেষই দেখে ফেলেছিলেন। অবশেষে মৌসুমের প্রথমবারের মতো নামলেন কাল, ওয়েস্ট হামের বিপক্ষে শেষ কয়েক মিনিট খেলতে পেরেছেন। একটুর জন্য গোলটা অধরা থেকে গেছে। তবে শোয়েইনি যেন অনুচ্চারে জানিয়ে দিলেন, তিনি ফুরিয়ে যাননি। ইউনাইটেড ওয়েস্ট হামের সঙ্গে ৪-১ গোলের জয় পেলেও কাল হেরে গেছে আর্সেনাল। 

    ২০ বছরের কোচিং ক্যারিয়ারে এই ট্রফিটা ছুঁয়ে দেখা হয়নি একবারও। আর্সেন ওয়েঙ্গার তাই হয়তো খুব করেই জয়টা চাইছিলেন। কিন্তু বিধি বাম, সাউদাম্পটনের কাছে ২-০ গোলে হেরে এবারো ইংলিশ ফুটবল লীগের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে ছিটকে পড়তে হলো গানার্সদের। 

    গত রবিবারের বোর্নমাউথের বিপক্ষে জয়ী দলে এনেছিলেন ১০ টি পরিবর্তন! আর এটিই হয়তো কাল হয়ে দাঁড়িয়েছিল আর্সেনালের জন্য। সানচেজ, অজিল, ওয়ালকটদের অনুপস্থিতি প্রতি মুহূর্তেই ভুগিয়েছে দলকে। ১৩ মিনিটেই ক্লাবের হয়ে প্রথম গোল করেন সাউদাম্পটনের জর্ডি ক্লাসি। ৩৮ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রায়ান বেরট্র্যান্ড। পিয়েরে এমিলি সুযোগ নষ্ট না করলে ব্যবধান আরও বাড়তে পারতো। এই জয়ে ১৯৮৭ সালের পর আবারো লীগ কাপের ফাইনালে উঠলো সাউদাম্পটন। আর পঞ্চমবারের মতো কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নিতে হলো ওয়েঙ্গারের দলকে।

    অন্যদিকে বাস্তিয়ান শোয়েনস্টাইগারের ফেরার ম্যাচে ইউনাইটেডের হয়ে জোড়া গোল পেয়েছেন  ইব্রাহিমোভিচ ও মার্শাল। শুরু থেকেই প্রাধান্য বিস্তার করে খেলছিল মরিনহোর দল। মাত্র ২ মিনিটের মাথায় ইব্রাহিমোভিচের গোলে এগিয়ে যায় তাঁরা। ৩৫ মিনিটে ফ্লেচারের গোলে সমতায় ফেরে ওয়েস্ট হাম।

     

    দ্বিতীয়ার্ধে প্রতিপক্ষকে আরও চেপে ধরে রুনির দল। ৪৮ মিনিটে মার্শালের গোলে আবারো এগিয়ে যায় ইউনাইটেড। এরপর আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি ওয়েস্ট হাম। ৬২ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন মার্শাল। যোগ করা সময়ে ইব্রাহিমোভিচ নিজের দ্বিতীয় গোল করলে বড় জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ইউনাইটেড।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন