• ওয়েস্ট ইন্ডিজ-পাকিস্তান
  • " />

     

    'মন্থর' দিনে এগিয়ে পাকিস্তান

    দ্বিতীয় দিন শেষে 

    পাকিস্তান ৩৭৬ (আজহার ১২৭, মিসবাহ ৫৯, বাবর ৫৫; চেজ ৪/১০৩, হোল্ডার ৩/৭১)

    ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৪/০ 


    ডমিনিকার উইন্ডসর পার্কের উইকেট অনেকটাই যেন উপমহাদেশের চিরাচরিত সেই ধীর, মন্থর উইকেট। বল ব্যাটে এসেছে ধীরে, ব্যাটসম্যানরা ছিলেন একটু বেশিই সতর্ক। সারাদিন ৮৮ ওভারে তাই রান উঠেছে ২২১, প্রায় দুই দিন ব্যাট করেও পাকিস্তান করেছে ৩৭৬। জবাবে দ্বিতীয় দিন শেষে এখনো উইকেট না হারিয়ে ১৪ রান তুলেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। পাকিস্তানের লিড পেরিয়ে যেতে হলে আজ করতে হবে অনেক বড় কিছুই। 

    আগের দিনই সেঞ্চুরির সুবাস পাচ্ছিলেন আজহার আলী। কাল বাকি ১৫ রানের জন্য অপেক্ষা করতে হয়েছে আরও কিছুক্ষণ। তবে শুরুতেই ইউনুস খানকে হারিয়ে ফেলেছে পাকিস্তান, এরপর সেঞ্চুরির পর বেশিক্ষণ থাকেননি আজহারও। সবাই অবশ্য বেশ দেখেশুনেই খেলেছেন, লাঞ্চের আগের সেশনে মাত্র ৫৮ রান তুলতে পেরেছে পাকিস্তান। এরপর আসাদ শফিক ও মিসবাহ ঠিক করলেন একটু সচল করার। শেষ পর্যন্ত সেটি করতে গিয়েই আউট হলেন দুজন। চেজের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ক্যাচ দিলেন শফিক, রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে মিসবাহ আউট হয়ে গেলেন সেই চেজের বলেই। ক্যারিয়ারের শেষ টেস্টে এসেও ফিফটি পেয়েছেন মিসবাহ,  পাকিস্তান তখন ৩১১ রানে হারিয়ে ফেলেছে ৬ উইকেট। 


    সেখান থেকে ৩৭৬ রান পর্যন্ত যাওয়ার কৃতিত্ব সরফরাজ আহমেদের। টেল এন্ডারদের নিয়ে বেশ কিছু রান তুলেছেন, নিজেও পেয়েছেন ফিফটি। শেষ বিকেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সুযোগ পেয়েছে ১১ ওভার খেলার। দুই ওপেনার কোনো ঝুঁকি না নিয়েই সময়টা পার করে দিয়েছেন। 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন