• " />

     

    বিপিএলে বাড়ছে বিদেশীদের সংখ্যা?

    এবারের বিপিএলে সাতটির জায়গায় আটটি দল খেলতে যাচ্ছে, ব্যাপারটা আগেই জানা গিয়েছিল। সিলেটের সেই ফ্র্যাঞ্চাইজি কী নামে আবার ফিরবে, সেটি অবশ্য চূড়ান্ত হয়নি। ভেন্যু হিসেবেও ফিরছে সিলেট, যদিও সেখানে কয়টি ম্যাচ হবে, তা নিশ্চিত নয়। তবে বিদেশী খেলোয়াড় বেড়ে চার জন থেকে পাঁচ জন হতে পারে, এমন একটা সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের মহাসচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক জানিয়েছেন, এবার বিদেশী খেলোয়াড় সংখ্যা চার থেকে বেড়ে পাঁচ হতে পারে।

    ঢাকা, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, রংপুর, বরিশাল, রাজশাহী ও খুলনা গত আসরেই ছিল। এবার সেখানে ফিরতে পারে বাদ যাওয়া সিলেট। যদিও সেটি এখনো চূড়ান্ত হয়নি। বিপিএল গর্ভং বডি চেয়ারম্যান আফজালুর রহমান সিনহা জানাচ্ছেন, ‘সিলেটের নাম যোগ হয়েছে, টেন্ডারও হয়েছে। এখনো ফ্র্যাঞ্চাইজির নাম চূড়ান্ত হয়নি।’ পরে ইসমাইল হায়দার মল্লিক জানিয়েছেন, কিছু আনুষ্ঠানিক বাধ্যবাধ্যকতার কারণে সিলেটের নাম এখনো নিশ্চিত নয়।  

    কিন্তু খুলনার মতো আন্তর্জাতিক ভেন্যু বাদ দিয়ে সিলেট কেন? মল্লিক জানিয়েছেন, অবকাঠামোগত সুবিধার কারণেই সিলেটকে বেছে নেওয়া, ‘সিলেটের ভেন্যু এখন আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খেলার জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত। সেখানে মাঠ, অন্যান্য সুযোগ সুবিধাও দারুণ। একটাই সমস্যা, সেখানে থাকার জন্য স্টেডিয়ামের আশেপাশে আন্তর্জাতিক মানের হোটেল মাত্র একটি। সেখানে হয়তো চারটা দল রাখা যেতে পারে। আর একটা রিসোর্টে হয়তো কিছু দল রাখা যাবে, আর বিপিএলে একটা দ্বিপাক্ষিক সিরিজের সব সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে। আর আইসিসির নিয়মে মাঠ থেকে হোটেলের দূরত্ব অন্তত ৪৫ মিনিট হতে হবে। সিলেটে হয়তো ছয়টা দলকে নিয়ে দুই দিন বা তিন দিনের জন্য কিছু একটা হতে পারে। সেটা অবশ্য এখনো চূড়ান্ত করা হয়নি। আমাদের ইচ্ছা আছে, সিলেটে খেলা নেওয়ার। ’  

     

    আগামী ৪ নভেম্বর থেকে শুরু হতে যাচ্ছে এবারের বিপিএলের পঞ্চম আসর।কিন্তু বিদেশীর সংখ্যা গত বারের চেয়ে বেড়ে হতে পারে পাঁচজন। এর মধ্যে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর বেশ কয়েকটি আবেদন করেছে, যেন বিদেশীর সংখ্যা বাড়িয়ে দেওয়া হয়। তবে বিপিএল গভর্নং কাউন্সিল চাইছে, সেটা না বাড়ুক। এই ব্যাপারে তাই এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। মল্লিক বলেছেন, বিদেশী দর্শক চাহিদা ও অন্যান্য দিক বিবেচনা করে এই প্রস্তাবটা এখনো চূড়ান্ত হয়নি। জানিয়েছেন, মানসম্মত যথেষ্ট স্থানীয় খেলোয়াড়ের অভাবেই কয়েকটি ফ্র্যাঞ্চাইজি বেশি বিদেশী খেলোয়াড় চাইছে।

    আগামী ৪ নভেম্বর শুরু হতে যাচ্ছে বিপিএলের এবারের আসর। ২ নভেম্বর হবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। আর খেলোয়াড়দের ড্রাফট হবে ১৬ সেপ্টেম্বর, ওই দিনই অন্তত দুইজন করে বিদেশী চূড়ান্ত করতে হবে।

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন