• ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    মারুফের সেঞ্চুরিতে এগিয়ে গেল প্রাইম ব্যাংক

    সংক্ষিপ্ত স্কোর

    শেখ জামাল ২৪২/৭, ৫০ ওভার (সানি ৫৮, তানভীর ৫৭, আল-আমিন ৩/৪৬)

    প্রাইম ব্যাংক ২৪৩/৫, ৪৮ ওভার (মারুফ ১২৭, জাকির ৪৯, রুবাইয়াত ১/২৭)

    ফলঃ প্রাইম ব্যাংক ৫ উইকেটে জয়ী


    সুপার লিগে সবার নিচে ছিল দুই দলই। শেষ রাউন্ডের আগের রাউন্ডের এই ম্যাচটা তাই ছিল প্রাইম ব্যাংক ও শেখ জামালের একটু ওপরে ওঠার সুযোগ। সেই সুযোগ কাজে লাগালো প্রাইম ব্যাংক। বিকেএসপিতে শেখ জামালকে ৫ উইকেটে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলে মোহামেডানকেও আপাতত টপকে গেছে প্রাইম ব্যাংক। মোহামেডান অবশ্য খেলেছে এক ম্যাচ কম।

     

    টসে জিতে ব্যাটিং নিয়েছিলেন শেখ জামাল অধিনায়ক ইলিয়াস সানি। তবে ব্যাটিংয়ে মূল কাজটা তার মূল ব্যাটসম্যানরা করতে পারেননি, করতে হয়েছে তাকে ও তানভীর হায়দারকে। ১০০ রানেই ৫ উইকেট যাওয়ার পর জুটি বাঁধেন দুইজন। দলকে নিয়ে যান ২০৪ পর্যন্ত, ৫৮ করে এরপর স্ট্যাম্পড তানভীর, আসিফের বলে। সানি থাকেন আরও কিছুক্ষণ, ৫৭ করে আউট হন একেবারে শেষ ওভারে। লিগে তানভীরের এটি ৩য় ফিফটি, সানির ১ম।

     

    শেখ জামালের ২৪২ রানের পুঁজিটা চতুর্থ ওভারেই যেন বড় বানিয়ে ফেলে প্রাইম ব্যাংক। আগের ম্যাচে ফিফটি করা ওপেনার শানাজ আহমেদ ১০ রানের মধ্যেই আউট। মেহেদী মারুফ ও জাকির হাসানের জুটি বাঁধার পালা এরপর। লিগে ৭ম ফিফটিটা ১ রানের জন্য পাননি জাকির, তবে মারুফ ঠিকই পেয়েছেন ২য় সেঞ্চুরি। শেষ পর্যন্ত ১৪৩ বলে ১০ চার ও ৪ ছয়ে ১২৭ রান করে আউট হয়েছেন, তবে তখন জয় থেকে মাত্র ১০ রান দূরে তার দল।

     

    ১২ বল ও ৫ উইকেট হাতে রেখেই জয়টা পেয়েছে প্রাইম ব্যাংক।

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন