• বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া
  • " />

     

    আরও এক বছর মিরাজদের বোলিং পরামর্শক থাকছেন যোশি

    অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজের জন্য খণ্ডকালীন স্পিন পরামর্শক হিসেবে তাকে আনা হয়েছিল। সাকিব-মিরাজদের দারুণ পারফরম্যান্সের পর চাকরির মেয়াদটা বাড়ছে সুনীল যোশির। দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের পরামর্শে ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যোশিকেই দলের স্পিন বোলিং কোচ হিসেবে রেখে দিচ্ছে বিসিবি।

    স্পিন বোলিং কোচ হিসেবে স্টুয়ার্ট ম্যাকগিলই ছিলেন বিসিবির ‘প্রথম পছন্দ’। শেষ পর্যন্ত আসা হয়নি তার, এসেছেন সুনীল যোশি। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম টেস্টে অজিদের ২০ উইকেটের ১৯ টিই নিয়েছেন বাংলাদেশের স্পিনাররা। শিষ্যদের এরকম পারফরম্যান্সে গর্বিত যোশি, “এটা একদমই অন্যরকম একটা অভিজ্ঞতা ছিল। একই সাথে গর্বেরও বটে! আমি দলের স্পিনারদের কৌশল নিয়ে কাজ করেছি। ক্রিজের ব্যবহার, ফিল্ডিং সাজানো ইত্যাদি ব্যাপারে টিপস দিয়েছি। ফিল্ডিং সাজানো একজন স্পিনারের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। আমি খুব খুশি যে সাকিব ও মিরাজ আমার পরামর্শ কাজে লাগিয়েছে।”

    বাংলাদেশের অভিষেক টেস্টে ভারতের হয়ে খেলেছিলেন, করেছিলেন ৯২ রানও। সেই বাংলাদেশের স্পিন কোচ হিসেবে দায়িত্ব নিতে আসা যোশি বলছেন, মিরাজরা অনেক দ্রুতই সবকিছু আয়ত্ত করছেন, “বাংলাদেশে আমার দারুণ কিছু স্মৃতি আছে। এই দায়িত্ব নেওয়াটা সেটার মাঝে অন্যতম। বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা দ্রুত সব আয়ত্ত করে নেয়। দিনের খেলা শেষে সবাই তিন সেশনের সবকিছু নিয়ে আলোচনা করে। আমি ভারতের প্রথম শ্রেণীর বেশ কিছু ক্রিকেটারের মাঝে এটা লক্ষ্য করেছি।”

     

     

    অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথমবারের মতো টেস্ট জয়ের পর পরের টেস্টে হেরে সিরিজ ড্র করেছে মুশফিকরা। যোশি মনে করেন, বাংলাদেশের ক্রিকেট সঠিক পথেই এগোচ্ছে, “অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওই জয়ের উদযাপনটা ছিল দেখার মতো। পুরো দেশই আনন্দে মেতে উঠেছিল। এটা দলের জন্য অনেক বড় ব্যাপার। অস্ট্রেলিয়াকে হারানো দারুণ একটা ব্যাপার। আমি নিশ্চিতভাবেই বলতে পারি, বাংলাদেশ ক্রিকেট ঠিক পথেই এগোচ্ছে। তারা একটা সময় টেস্টের অন্যতম শক্তিশালী দল হিসেবে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করবে।”

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন