• ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ
  • " />

     

    শততম ওয়ানডেতে ওয়ার্নারের শতকে জিতলো অস্ট্রেলিয়া

    চতুর্থ ওয়ানডে, বেঙ্গালুরু
    অস্ট্রেলিয়া ৩৩৪/৫, ৫০ ওভার (ওয়ার্নার ১২৪, ফিঞ্চ ৯৪, উমেশ ৪/৭১)
    ভারত ৩১৩/৮, ৫০ ওভার (যাদব ৬৭, রোহিত ৬৫, রিচার্ডসন ৩/৫৮)
    ফল : অস্ট্রেলিয়া ২১ রানে জয়ী 


    শুরুটা যেমন দরকার ছিল, রোহিত শর্মা ও আজিঙ্কা রাহানে করেছিলেন তেমনই। ১০৬ রানের ওপেনিং জুটি, অস্ট্রেলিয়ার জন্য আরেকটি হতাশাকাব্যের ভূমিকাই যেন লিখলেন দুইজন। তবে সেই হতাশার পর একরাশ স্বস্তি পেলো অস্ট্রেলিয়া, সিরিজ হারার পর পেলো প্রথম জয়। 

    প্রথমে কেন রিচার্ডসনকে ডাউন দ্য গ্রাউন্ডে মারতে গিয়ে ক্যাচ দিলেন রাহানে। এরপর রান-আউট হলেন রোহিত, তাতে থাকলো তিন অস্ট্রেলিয়ানের নাম। স্টিভেন স্মিথের অসাধারণ ফিল্ডিংয়ের পর থ্রো করলেন ব্যাটিং প্রান্তে, রোহিত-কোহলি দুজনই তখন ক্রিজে পৌঁছাতে ব্যস্ত। ব্যাক-আপে ছিলেন হেড। তিনি থ্রো করলেন বোলিং প্রান্তে, রিচার্ডসন ভাঙলেন স্টাম্প, রান-আউটের ভাগ্য মেনে নিতে হলো রোহিতকে। 

    কোহলিও বেশিক্ষণ টিকলেন না, ন্যাথান কোল্টার-নাইলের বলে আলগা কাট করতে গিয়ে স্টাম্পে ডেকে আনলেন বল। অস্ট্রেলিয়ার হতাশাকাব্যের লেখাগুলো যেন বদলে যেতে লাগলো। হারদিক পান্ডিয়া ও কেদার যাদবের ৭৬ রানের জুটি জাগালো শঙ্কা। অ্যাডাম জ্যাম্পার লেগস্পিন আনলো স্বস্তির ছোঁয়া, তিন ছয়ে ৪১ করা পান্ডিয়া দিলেন ক্যাচ। পান্ডিয়া গেলেন, মনিশ পান্ডে এলেন, যাদবের সঙ্গে গড়লেন ৬১ রানের জুটি। ৪২তম ওভারে এলো বৃষ্টি, ভারতের রান তখন ৪ উইকেটে ২৫১। বৃষ্টি বিরতির পরই যেন ভাগ্য খুললো অস্ট্রেলিয়ার, যাদব গেলেন, পান্ডে গেলেন, গেলেন ভারতের শেষ ভরসা ধোনিও। ভারতের নাগাল থেকে বেরিয়েই গেল চতুর্থ ওয়ানডেটা। 

    রোহিত-আজিঙ্কার চেয়েও আরও দারুণ শুরু করেছিলেন ওয়ার্নার-ফিঞ্চ। ২৩১ রানের ওপেনিং জুটি, টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি মাত্র ৬ রানের জন্য পাওয়া হয়নি ফিঞ্চের। আউট হয়েছেন যাদবের বলে। তবে শততম ওয়ানডেতে ‘স্পেশাল’ সেঞ্চুরিটা পেয়ে গেছেন ওয়ার্নার, করেছেন ১২৪। শততম ম্যাচে শতক পাওয়া তৃতীয় ব্যাটসম্যান তিনি। 

    শেষদিকে হ্যান্ডসকম্ব ও স্টোইনিসে ভর করে ভারতের মাটিতে চতুর্থ সর্বোচ্চ রান তোলে ভারত। সে রানই যথেষ্ট হলো তাদের, চতুর্থ ওয়ানডেতে এসে প্রথম জয় পেতে। 
     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন