• ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ
  • " />

     

    বেরেনড্রফে বেতাল হলো ভারত

    দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি, গুয়াহাটি
    ভারত ১১৮ অল-আউট, ২০ ওভার (যাদব ২৭, পান্ডিয়া ২৫, বেরেনড্রফ ৪/২১, জ্যাম্পা ২/১৯) 
    অস্ট্রেলিয়া ১২২/২, ১৫.৩ ওভার (হেনরিকস ৬২*, হেড ৪৮, ভুবনেশ্বর ১/৯)
    ফল : অস্ট্রেলিয়া ৮ উইকেটে জয়ী 


    নিজের প্রথম তিন ওভারের মাঝেই তুলে নিলেন ভারতের প্রথম চার ব্যাটসম্যানকে। দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে নামা জ্যাসন বেরেনড্রফের সেই তোপ আর সামাল দিতে পারেনি ভারতের ব্যাটিং লাইন-আপ, পরে বোলিংয়ে দ্রুত আঘাত করলেও ধরে রাখতে পারেনি তা। দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে বেরেনড্রফের দুর্দান্ত বোলিংয়ে ভারতকে সহজেই হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। 

    গুয়াহাটি এদিন হলো ভারতের ৪৯তম আন্তর্জাতিক ভেন্যু। নতুন ভেন্যুতে টসটা জিতলেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। প্রথম ওভারে দুই চার মেরে রোহিত শর্মা শুরুটা ভালই করেছিলেন, চতুর্থ বলেই পড়লেন এলবিডাব্লিউর ফাঁদে। ওই ওভারেই বিরাট কোহলির ইনসাইড-এজটা দৌড়ে গিয়ে ধরলেন বেরেনড্রফ নিজেই, কোহলি এতোটাই বিভ্রান্ত হলেন, সতীর্থের সঙ্গে রিভিউ নেয়া না নেয়া নিয়ে আলোচনাও করলেন একচোট! 

    পরের ওভারে মনিশ পান্ডে বেরেনড্রফের ব্যাক-অব-আ লেংথ বলে কুপোকাত। এরপরের ওভারে ধাওয়ান বনলেন অস্ট্রেলিয়ান বাঁহাতি পেসারের চতুর্থ শিকার। এতে অবশ্য বেশ খানিকটা ভাগ দিতে হবে ওয়ার্নারকেও, ক্যাচটা নিয়ে দর্শকদের দিকে ঘুরে তার উদযাপনটাই বলে দিচ্ছিল, কতো দুর্দান্ত ছিল সেটা! ভারত বনে গেল ২৭ রানে ৪ উইকেট, সেই ধাক্কাটা সামাল দিতে পারলো না পুরো ম্যাচেই! 

    বেরেনড্রফের পর এলেন অ্যাডাম জ্যাম্পা, লেগস্পিন নিয়ে। কেদার যাদব, ভারতের এদিন সর্বোচ্চ স্কোরার, গুগলি পড়তে না পেরে হলেন বোল্ড। এরপর ধোনি হলেন স্টাম্পড, তার টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো। হারদিক পান্ডিয়াও ক্যাচ দিলেন স্টোইনিসের বলে, তুলতে পারলেন না ঝড়। ভারতকে ১১৮ রানে বেঁধে ফেলে দারুণ এক সুযোগ তৈরি করে ফেললো অস্ট্রেলিয়ান বোলিং লাইন-আপ। 

    ওয়ার্নার-অ্যারন ফিঞ্চের ওপেনিং জুটি ফিরলো ৩ ওভারের মাঝেই, ১৩ রানে। দুইদিক থেকে দুই পেসার জাসপ্রিত বুমরাহ ও ভুবনেশ্বর কুমার পেলেন সাফল্য। ভারতের দুই রিস্ট-স্পিনারের খেল দেখানো তখনও বাকি, অন্তত গুয়াহাটির দর্শকদের চাওয়া ছিল এমনটিই। 

    সে চাওয়া পূর্ণ হতে দিলেন না ট্রাভিস হেড ও মইসে হেনরিকস। হেনরিকস অপরাজিত থাকলেন ৪৬ বলে ৬২ রানে, হেড থাকলেন ৩৪ বলে ৪৮ করে। ২৭ বল বাকি থাকতেই সিরিজে সমতা ফেরালো অস্ট্রেলিয়া, ওয়ানডে সিরিজের মতো টি-টোয়েন্টিতেও হেরে শুরু করা অজিরা পেলেন হায়দরাবাদে লড়াই করার প্রেরণা!  

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন