• নিউজিল্যান্ড-ভারত ওয়ানডে সিরিজ
  • " />

     

    ছদ্মবেশী সাংবাদিকদের তথ্য দিয়ে নিষিদ্ধ পুনে কিউরেটর!

    ম্যাচ ফিক্সিংয়ের কথা তো অনেক শুনেছেন। পিচ ফিক্সিংয়ের কথা কি শুনেছেন? ম্যাচের আগে দুই দলের অধিনায়ক-কোচ বা খেলোয়াড় ছাড়া আর কারও পিচের কাছ পর্যন্ত যাওয়া নিষেধ। সেখানে পুনের পিচ কিউরেটর জুয়াড়ি সাজা কয়েকজন সাংবাদিককে নিয়ে গেছেন একেবারে পিচ পর্যন্ত। শুধু তাই নয়, টাকার বিনিময়ে পিচে কিছু পরিবর্তনের প্রস্তাবে পর্যন্ত রাজি হয়েছেন। ভারত-নিউজিলান্ড দ্বিতীয় ওয়ানডের আগে এ নিয়ে চলছে তুমুল আলোড়ন।

    বুবার দুপুরেই পুনেতে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে ভারত-নিউজিল্যান্ড। কাল মাচের আগের দিন জুয়াড়ি সেজে ইন্ডিয়ান টুডে পত্রিকার কয়েকজন সাংবাদিক দেখা করতে গিয়েছিলেন পানদুরাং সালগাওকারের কাছে। তখনই তারা প্রস্তাব দেন, টাকা দিলে সালগাওকার পিচে কোনো পরিবর্তন আনতে পারবেন কি না। সালগাওকার তাতে রাজি তো হয়েছেনই, জানিয়েছেন পিচে চাইলে বাড়তি একটু বাউন্সেরও ব্যবস্থা করা যাবে। ইন্ডিয়ান টুডে এই বোমা ফাটানোর পর ভারতের গণমাধ্যমে পড়ে গেছে আলোড়ন।

    সালগাওকর শুধু পিচের কাছেই নিয়ে যাননি, কেমন হবে তাও বলে দিয়েছেন স্পষ্ট করে। তাঁর মতে, এই পিচে প্রচুর রান হবে। পরে ব্যাট করে ৩৪০ রান তাড়া করে জেতাও এখানে সম্ভব। আর গড়ে ৩৪০-৩৫০ পর্যন্তও উঠতে পারে।

    এর মধ্যে বিসিসিআই স্বীকার করেছে, এই ঘটনা অবশ্যই আইনের চূড়ান্ত লঙ্ঘন। এর মধ্যেই তারা তদন্ত শুরু করেছে এবং অভিযোগ প্রমাণিত হলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও নিশ্চিত করেছে। প্রাথমিক ব্যবস্থা হবে সালগাওকরকে আপাতত নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

    কিউরেটর হওয়ার আগে সালগাওকর ফাস্ট বোলার হিসেবে পেশাদার ক্রিকেট খেলেছেন। ৬৩টি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচে ২১৩ উইকেট আছে তাঁর।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন