• অস্ট্রেলিয়ার আরব আমিরাত সফর
  • " />

     

    • অস্ট্রেলিয়ার আরব আমিরাত সফর

    এবার পদত্যাগ করলেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার চেয়ারম্যান

    কেপটাউনে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারির পর কেটে গেছে সাত মাস। তবে সেটার ঝাপটা একের পর এক লাগছেই অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটে। সেই ঝাপটায় এবার সরে গেলেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার চেয়ারম্যান ডেভিড পিভার। মাত্র সপ্তাহখানেক আগেই তিন বছরের জন্য পুনর্মেয়াদে সর্বসম্মতক্রমে নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। পিভারের জায়গায় অন্তর্বর্তীকালিন দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ডেপুটি চেয়ারম্যান আর্ল এডিংসকে। 

    সোমবার এথিকস সেন্টার প্রকাশিত অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট বোর্ডকে নিয়ে রিভিউয়ের পরই নতুন করে সমালোচনা বেড়েছিল পিভারকে নিয়ে। সেই রিপোর্টে বলা হয়েছে, ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ‘একগুঁয়ে’, ‘যে কোনও মূল্যে জয়ের সংস্কৃতি দলের মধ্যেও প্রবেশ করিয়েছে’। এ রিপোর্টের আগে পিভার বলেছিলেন, তিনি পদত্যাগ করবেন না, বরং ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার কাজ করতে পেরে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করেন তিনি, তার দায়িত্বও আছে এখানে। আর বল-টেম্পারিং কান্ডকে ‘সামান্য’ বলেছিলেন তিনি।  

    তবে সেই রিপোর্ট প্রকাশ হওয়ার পর থেকেই রাজ্য সংস্থাগুলো থেকে ক্রমাগত চাপ বেড়েছে পিভারের ওপর। যারা সপ্তাহখানেক আগে পূর্ণ সমর্থন দিয়েছিলেন তাকে, এই রিপোর্টের পর বিগড়ে গেছেন তারাই। এক বোর্ড মিটিংয়ে নিজের পদত্যাগপত্র তুলে দিয়েছেন তিনি। 

    “আমরা ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ও অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটের পুনর্গঠনের দিকে তাকাচ্ছি”, পিভারের পদত্যাগের পর এক বিবৃতিতে বলেছেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এডিংস, “ক্রিকেট সম্প্রদায়ের বিশ্বাস ফিরে পেতে যে আমাদের দীর্ঘ পথ পাড়ি দিতে হবে, সে ব্যাপারে বোর্ড সচেতন আছে। আমরা এবং নির্বাহী কমিটি ক্রিকেটকে আরও শক্তিশালি করতে প্রতিজ্ঞ।” 

    কেপটাউন টেস্টে বল টেম্পারিং কান্ডে নিষিদ্ধ করা হয়েছে তখনকার অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ, সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার ও ব্যাটসম্যান ক্যামেরন ব্যানক্রফটকে। এরপর পিভারের আগে দায়িত্ব ছেড়েছেন কোচ ডেভিড লেম্যান, ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী জেমস সাদারল্যান্ড। ২০১৯ অ্যাশেজের পর হাই পারফরম্যান্স ম্যানেজার প্যাট হাওয়ার্ডও দায়িত্ব ছাড়বেন বলে জানিয়েছেন।