• ক্রিকেট

দুর্দান্ত স্টার্কেই হোয়াইটওয়াশ শ্রীলংকা

স্কোর

অস্ট্রেলিয়া ৫৩৪/৫ ডিক্লে ও ১৯৬/৩ ডিক্লে

শ্রীলংকা ২১৫/৯ ও ৫১ ওভারে ১৪৯ ( মেন্ডিস ৪২, থিরিমানে ৩০; স্টার্ক ৫/৪৬, কামিন্স ৩/১৫)

অস্ট্রেলিয়া ৩৬৬ রানে জয়ী

 

ম্যাচ বাঁচাতে হলে অবিশ্বাস্য কিছুই করতে হতো শ্রীলংকার ব্যাটসম্যানদের। মিচেল স্টার্ক ও প্যাট কামিন্সের গতিঝড়ে সেরকম কিছু আর হলো না, শ্রীলংকা গুটিয়ে গেল চতুর্থ দিনের মাঝপথেই। ক্যানবেরাতে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে শ্রীলংকাকে ৩৬৬ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে তাদের হোয়াইটওয়াশ করল অস্ট্রেলিয়া।

 

 

চতুর্থ দিনের তৃতীয় ওভারেই প্রথম উইকেট হারায় শ্রীলংকা। স্টার্কের দারুণ এক ইনসুইঙ্গারে বোল্ড হন দিমুথ করুনারত্নে। এই নিয়ে টেস্টে অষ্টমবারের মতো করুনারত্নেকে ফেরালেন স্টার্ক। দিনেশ চান্ডিমালও ফেরেন স্টার্কের বলে স্লিপে ল্যাবুশেনের হাতে তালুবন্দি হয়ে।

 

লাহিরু থিরিমানে ও নিরোশান ডিকভেলা কিছুটা প্রতিরোধের আভাস দিচ্ছিলেন। অজি বোলারদের ওপর বেশ চড়াও হয়েছিলেন দুইজন। দারুণ এক ক্যাচে ৩০ রানে থিরিমানেকে ফেরান কামিন্স। ডিকভেলা ২৭ রানে ফিরেছেন স্টার্কের বলে বোল্ড হয়ে।

ঝাই রিচার্ডসনের বলে মিড অনে ট্রাভিস হেডকে ক্যাচ দিয়ে যখন ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে দনঞ্জয়া ডি সিলভা ফেরেন, লংকানদের রান তখন মাত্র ৯৭। কুশল মেন্ডিস ও চামিকা করুনারত্নের ৪৬ রানের জুটি প্রায় ঘণ্টা দেড়েক অজি বোলারদের হতাশ করেছে।

সেই হতাশা অবশ্য খুব বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। মেন্ডিসকে ৪২ রানে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন ল্যাবুশেন। ড্রাইভ করতে গিয়ে মিড অনে প্যাটারসনের হাতে তালুবন্দি হন মেন্ডিস। এরপর শ্রীলংকার বাকি তিন উইকেট পড়েছে ৬ রানের মাঝেই। প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও পাঁচ উইকেট নিয়েছেন স্টার্ক। ম্যাচে দশ উইকেটে নিয়ে ম্যাচসেরা হয়েছেন স্টার্কই।

অধিনায়ক টিম পেইন ও কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার জুটির এটাই প্রথম সিরিজ জয়। ব্যাটে বলে দুর্দান্ত অস্ট্রেলিয়া এই ফর্মটা সামনেও ধরে রাখবে, এমনটাই চাইবেন পেইন-ল্যাঙ্গার।