• অস্ট্রেলিয়া-শ্রীলংকা সিরিজ
  • " />

     

    • অস্ট্রেলিয়া-শ্রীলংকা সিরিজ

    ভারত সফর থেকে ছিটকে গেলেন স্টার্ক

    দুর্ভাগ্য বোধহয় একেই বলে! বেশ কয়েকমাস ধরেই ফর্মে ভাটা পড়েছিল তাঁর। অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার তো মিচেল স্টার্ককে সতর্কবার্তাও দিয়েছিলেন, উইকেট না পেলে দলে জায়গা হারাতে হতে পারে। শ্রীলংকার বিপক্ষে শেষ টেস্ট স্বরূপে ফিরেছিলেন স্টার্ক। ফর্মে ফেরার পরপরই শুনলেন দুঃসংবাদ। পায়ের মাংসপেশিতে টান লাগায় ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজে খেলতে পারবেন না স্টার্ক।

     

     

    শ্রীলংকার বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে দুই ইনিংসেই পাঁচ উইকেট নিয়েছিলেন স্টার্ক। ওই ম্যাচে দশ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হয়েছিলেন স্টার্কই। তবে ক্যানবেরাতে ম্যাচের শেষদিনে বোলিংয়ের সময় বাঁ পায়ের মাংসপেশিতে টান লাগে তাঁর। প্রথমে খুব গুরুতর মনে না হলেও স্ক্যানের পর জানা যায়, প্রায় এক মাসের মতো বিশ্রামে থাকতে হবে তাকে।

    অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাচক ট্রেভর হনস জানিয়েছেন, মার্চে অনুষ্ঠিত পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজেই ফিরতে পারেন স্টার্ক, ‘ক্যানবেরাতে বোলিং করার সময় তাঁর বাম পায়ের মাংসপেশিতে টান লাগে। স্ক্যানের পর ডাক্তাররা নিশ্চিত করেছেন, বেশ কয়েক সপ্তাহ সে খেলতে পারবে না। তাই ভারত সফরেও তাঁর থাকা হচ্ছে না। পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজে ফেরার জন্যই চেষ্টা করবে সে।’

    অস্ট্রেলিয়া দলে ফিরেছেন পেসার কেন রিচার্ডসন ও নাথান কোল্টার নাইল। ভারত ও শ্রীলংকার বিপক্ষে সিরিজে ডাক না পাওয়ায় নির্বাচকদের ওপর চটেছিলেন কোল্টার নাইল। দলে নতুন মুখ অলরাউন্ডার অ্যাস্টন টার্নার। স্কোয়াডে জায়গা হয়নি পিটার সিডল ও মিচলে মার্শের। স্ত্রী সন্তানসম্ভবা হওয়ায় তৃতীয় ওয়ানডেতে দলের সাথে যোগ দেবেন শন মার্শ।

    ২৪ ফেব্রুয়ারি বিশাখাপত্তনমে শুরু হবে প্রথম টি-টোয়েন্টি। হায়দরাবাদে ২ মার্চ হবে প্রথম ওয়ানডে।