• ইউরো বাছাইপর্ব
  • " />

     

    • ইউরো বাছাইপর্ব

    গোল করেই শততম ম্যাচ রাঙালেন হ্যাজার্ড

    রাশিয়ার বিপক্ষে বাছাইপর্বের প্রথম ম্যাচে করেছিলেন জোড়া গোল। বেলজিয়ামের হয়ে নিজের শততম ম্যাচেও গোল পেলেন অধিনায়ক এডেন হ্যাজার্ড। দ্বিতীয় ম্যাচে সাইপ্রাসকে ২-০ গোলে হারিয়ে 'আই 'গ্রুপের শীর্ষেই রইল বেলজিয়াম। অন্য ম্যাচে লাটভিয়াকে ২-০ গোলে হারিয়ে 'জি' গ্রুপের শীর্ষে উঠেছে পোল্যান্ড, আট ম্যাচ পর গোল পেয়েছেন অধিনায়ক রবার্ট লেভানডফস্কি। 

    ম্যাচের মাত্র দশ মিনিটের মাথায়ই বেলজিয়ামকে এগিয়ে দেন হ্যাজার্ড। বক্সের ভেতর বল পেয়ে ডান পায়ের বাঁকানো শটে পরাস্ত করেন সাইপ্রাস কিপারকে। আট মিনিট পরেই লিড দ্বিগুণ করেন মিকি বাতসুয়াই। থোরগান হ্যাজার্ডের দারুণ এক থ্রুতে বল পেয়েছিলেন বাতসুয়াই, ছয় গজ দূর থেকে তাঁর শট ঠেকাতে পারেননি পারদো।

    ৩৬ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোল পেতে পারতেন বাতসুয়াই, তাঁকে এবার হতাশ করেন পারদো। দুই মিনিট পর গোলের সুযোগ এসেছিল সাইপ্রাসের সামনে, ফোতিস পাপুলিসের শট ঠেকিয়ে দেন থিবো কোর্তোয়া।

    দ্বিতীয়ার্ধের ৬৮ মিনিটে আবার গোলের সুযোগ নষ্ট করেন বাতসুয়াই। ৭৮ মিনিটে গোল পেতে পারতেন ইয়ানিক কারাসকোও, তাঁর শটও বাঁচিয়ে দেন পারদো। শেষ বাঁশি বাজার দুই মিনিট আগে সান্ত্বনাসূচক গোল পেতে পারত সাইপ্রাস, লাইফিসের হেড পোস্টে লেগে ফিরে আসলে সেটা আর হয়নি। শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলে জিতেই মাঠ ছাড়ে বেলজিয়াম। ২ ম্যাচে ছয় পয়েন্ট নিয়ে আই গ্রুপের শীর্ষে আছে তাঁরা।

    রাতের অন্য ম্যাচে লাটভিয়াকে ২-০ গোলে হারিয়ে জি গ্রুপের শীর্ষে উঠে এসেছে পোল্যান্ড। প্রথমার্ধে তেমন কোন সুযোগ তৈরি করতে পারেনি দুই দলই। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেও নিষ্প্রভ ছিলেন পোলিশ ফরোয়ার্ডরা। র‍্যাংকিংয়ের ১৩১ তম দল লাটভিয়ার সাথে ড্রয়ের শঙ্কা যখন ঘুরপাক খাচ্ছে পোল্যান্ড ডাগআউটে, তখনই ত্রাতা হিসেবে আবির্ভূত হন লেভানডফস্কি। আট ম্যাচের গোলখরা কাটিয়ে ৭৮ মিনিটে দারুণ এক হেডে দলকে এগিয়ে দেন।

     

     

    ৮৪ মিনিটে কামিল গ্লিক ব্যবধান দ্বিগুণ করলে ২-০ গোলের স্বস্তির জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে পোল্যান্ড। এই জয়ে ২ ম্যাচে তাদের পয়েন্ট ছয়।