• ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯
  • " />

     

    আমিরকে ছাড়াই পাকিস্তানের বিশ্বকাপ স্কোয়াড

    মোহাম্মদ আমিরকে ছাড়াই বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা করেছে পাকিস্তান। জায়গা পাননি পেসার উসমান শিনওয়ারিও। বিশ্বকাপ স্কোয়াডে না থাকলেও এর আগে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে দলে আছেন আমির ও আসিফ আলি। প্রতিটি দলই ২৩ মে এর আগে সুযোগ পাবে স্কোয়াড বদলানোর। 

    শেষবার ইংল্যান্ডে যখন গিয়েছিলেন আমির, আরেকটি আইসিসি টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালে হয়েছিলেন ম্যাচসেরা। তবে এরপর থেকে ফর্মটা পক্ষে নেই তার, ২০১৭ সালের জুনের সেই ফাইনালের পর থেকে ১৪ ম্যাচে ৫ উইকেট নিয়েছেন তিনি ৯২.৬০ গড়ে। ইনজামাম-উল-হকের নির্বাচক প্যানেলের ঘোষিত দলে তাই শেষ পর্যন্ত জায়গা হয়নি তার। 

    দলে সুযোগ পেয়েছেন অস্ট্রলিয়ার বিপক্ষে অভিষেকেই সেঞ্চুরি করা ৩১ বছর বয়সী ওপেনার আবিদ আলি। টপ অর্ডারে জায়গা পাননি শান মাসুদ, আছেন ইমাম-উল-হক ও ফাখার জামান। 



     


    পেসার হিসেবে জুনাইদ খান ও হাসান আলির সঙ্গে আছেন দুই টিন-এজার শাহিন শাহ আফ্রিদি ও মোহাম্মদ হাসনাইন। আফ্রিদি ১০ ওয়ানডে খেলেছেন, আর হাসনাইনেরও অভিষেক হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষেই। এ স্কোয়াড দিয়ে দলে ফিরছেন অলরাউন্ডার মোহাম্মদ হাফিজও। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে শেষ খেলেছিলেন তিনি, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজে খেলতে পারেননি চোটের কারণে। 

     

     

    স্পিনার হিসেবে শাদাব খান, ইমাদ ওয়াসিমদের সঙ্গে আছেন শোয়েব মালিক, হাফিজরা। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হোয়াইটওয়াশ হওয়া সিরিজে খেললেও বিশ্বকাপে যাওয়া হচ্ছে না লেগস্পিনার ইয়াসির শাহর। 

    সে বিপক্ষে সিরিজে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছিল নিয়মিত অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদকে। তার জায়গায় খেলা উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ রিজওয়ান করেছিলেন দুইটি সেঞ্চুরি। তবে শেষ পর্যন্ত তাকেও উপেক্ষা করেছে পাকিস্তান। 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন