• ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯
  • " />

     

    হেলসকে বিশ্বকাপে চাননি তাঁর সতীর্থরাই!

    বিশ্বকাপের মাত্র একমাস আগে এভাবে স্কোয়াড থেকে বাদ পড়তে হবে, সেটা হয়ত তিনি কল্পনাতেও ভাবেননি। আনন্দবর্ধক ড্রাগ নেওয়ায় বিশ্বকাপ স্কোয়াড থেকে বাদ পড়ে রীতিমত ভেঙে পড়েছেন অ্যালেক্স হেলস। কষ্টটা হয়ত আরও বেশি পাবেন হেলস এটা জেনে যে, তাকে আসলে দলে রাখতে চাননি ইংল্যান্ড অধিনায়ক এউইন মরগানসহ অন্য সতীর্থরাও!

    ২১ দিনের নিষেধাজ্ঞা পাওয়ার পর গত শনিবার কার্ডিফে জাতীয় দলের ক্যাম্পে গিয়েছিলেন হেলস। সেখানে থাকা সতীর্থদের সাথে এই ব্যাপারে কথাও বলেছিলেন তিনি। তাঁরা  যেন হেলসের পক্ষে থাকে, এমনটাই ছিল তার চাওয়া।

    তবে ইংলিশ বোর্ড যখন হেলসকে স্কোয়াড থেকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তখন সেটায় সম্মতি ছিল দলের অন্যদেরও। টেলিগ্রাফ বলছে, দলের সবাই হেলসের এমন কান্ডে খুবই হতাশ। অতীতের ভুল থেকে শিক্ষা নেননি হেলস, এটাও অবাক করেছে তাদের। মরগান ও কোচ ট্রেভর বেয়লিস চাইলে হেলসের পক্ষ নিয়ে ইসিবিকে অনুরোধ করতে পারতেন, তবে তারাও হেলসকে রাখার বিপক্ষে ছিলেন।

    মরগান ও বেয়লিস দুইজনই চেয়েছেন, বিশ্বকাপের সময় দলের মাঝে যেন ‘ডিসিপ্লিন’ থাকে। হেলসের উপস্থিতি এটা নষ্ট করবে বলেই আশংকা ছিল তাদের। এই কারণেই ইসিবির সিদ্ধান্তের সাথে তারাও একমত হয়েছেন।

     

     

    এদিকে ইসিবি প্রফেশনালস ক্রিকেটারস অ্যাসোসিয়েশনের সাথে হেলসের ড্রাগ নেওয়ার ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করবে। ভবিষ্যতে আর কেউ যেন এমন ড্রাগ না নেয়, সেই ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক করতেও বদ্ধ পরিকর তাঁরা।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন