• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    সিটির 'বিলিয়নিয়ার' স্কোয়াডের নতুন রেকর্ড

    এই দলবদলের মৌসুমে খুব বড় অংকের টাকা খরচ করেনি ম্যানচেস্টার সিটি। তবুও বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফুটবল স্কোয়াড সিটিজেনদের। শুধু তাই নয়, ক্লাব ফুটবলের ইতিহাসে এই প্রথমবারের মতো কোনো দলের স্কোয়াডের ফুটবলারদের মূল্য ১ বিলিয়ন ইউরো ছাড়িয়ে গেছে! 

    ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর স্পোর্টস স্টাডিস তাদের এক রিপোর্টে জানিয়েছে, ম্যানচেস্টার সিটির বর্তমান স্কোয়াডের ফুটবলারদের মোট ট্রান্সফার ফি প্রায় ১০১৪ মিলিয়ন ইউরো! ফুটবল ইতিহাসে যা আগে কখনোই দেখা যায়নি। ৯১৩ মিলিয়ন ইউরোর স্কোয়াড নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে ফরাসি ক্লাব পিএসজি। ৯০২ মিলিয়ন ইউরোর দল নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ। 

    চতুর্থ স্থানে আছে ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড (৭৫১ মিলিয়ন ইউরো), পঞ্চম স্থানে আছেন ইতালিয়ান ক্লাব জুভেন্টাস(৭১৯ মিলিয়ন ইউরো)। বার্সেলোনা আছে ষষ্ঠ স্থানে (৬৯৭ মিলিয়ন ইউরো), তাদের পরেই আছে চ্যাম্পিয়নস লিগের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল (৬৩৯ মিলিয়ন ইউরো)। সেরা দশে আছে চেলসি, আর্সেনাল ও অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। 

    ইউরোপের শীর্ষ লিগগুলোতে সবচেয়ে দামি স্কোয়াড ও সবচেয়ে কমদামি স্কোয়াডের পার্থক্যটাও তুলে ধরা হয়েছে এই রিপোর্টে। সেখানে জানা যায়, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে সবচেয়ে কমদামি স্কোয়াড নরউইচ সিটির, যা সিটিজেনদের চেয়ে ৩২ গুন কম। লা লিগায় রিয়ালের চেয়ে ১৪৮ গুন কম দামের স্কোয়াড নিয়ে খেলে মায়োরকার। পিএসজির চেয়ে ১১৪ গুন কমদামি স্কোয়াড নিমসের। বুন্দেসলিগায় বায়ার্ন মিউনিখের চেয়ে ৮৫ গুন কমদামি স্কোয়াড প্যাডেরবর্নের। সিরি আতে জুভেন্টাসের চেয়ে ৬৩ গুন পিছিয়ে আছে লিস। 

     

     

    এই রিপোর্টে দেখা গেছে, প্রতি দলবদলের মৌসুমে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগেই গড়ে সবচেয়ে বেশি টাকা ঢালা হয়। প্রিমিয়ার লিগে এই অংকটা গড়ে ৩৪৫ মিলিয়ন ইউরো, লা লিগা ও সিরি আতে ১৬৭ মিলিয়ন ইউরো। বুন্দেসলিগায় এটি ১২৪ মিলিয়ন ইউরো ও ফ্রেঞ্চ লিগে তা ১১৮ মিলিয়ন ইউরো।