• ক্রিকেট, অন্যান্য
  • " />

     

    ভারত সফরের প্রস্তুতি ক্যাম্পে থাকবেন ভেট্টোরি, প্রথম টেস্ট পর্যন্ত ম্যাকেঞ্জি

    আপাতত মাঠে খেলা নেই, জাতীয় লিগ শুরুর আমেজ অবশ্য পাওয়া যাচ্ছে মিরপুরে। পুরোদমে শুরু হয়ে গেছে ক্রিকেটারদের অনুশীলন। তবে অলক্ষ্যে ভারত সিরিজের জন্য প্রস্তুতির একটা আভাস মিলছে জাতীয় ক্রিকেটারদের মধ্যে। খেলার মধ্যে সবাই আছে বলে এবারের ক্যাম্প শুরু হবে একটু দেরিতে। আজ বিসিবিতে ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান নিশ্চিত করলেন, ২৫ অক্টোবর ক্যাম্প শুরুর আগেই যোগ দেবেন স্পিন বোলিং কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টোরি। আর প্রথম টেস্টের আগ পর্যন্ত পাওয়া যাবে ব্যাটিং পরামর্শক নিল ম্যাকেঞ্জিকেও।

    বিশ্বকাপের পরেই একরকম খোলনলচে বদলে যায় বাংলাদেশের কোচিং স্টাফের। হেড কোচ স্টিভ রোডস চলে যান, পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ ও স্পিন কোচ সুনীল যোশির মেয়াদও শেষ হয়ে যায়। থেকে যান নিল ম্যাকেঞ্জি ও ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুক, সঙ্গে যোগ দেন দুই স্বদেশী হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গো ও পেস বোলিং কোচ চার্ল ল্যাঙ্গেফেল্ট। তবে স্পিন বোলিং কোচ হিসেবে ভেট্টোরি নিয়োগ পেলেও যোগ দেননি দলের সঙ্গে। তার সঙ্গে বিসিবির শর্তই ছিল বছরে ১০০ দিন কাজ করবেন। ত্রিদেশীয় সিরিজে আসেননি, ভারত সফরের আগে যোগ দেওয়ার কথা ছিল। আজ আকরাম খান নিশ্চিত করলেন, ২৫ অক্টোবর শুরু ক্যাম্প থেকেই থাকবেন বাংলাদেশের স্পিন বোলিং কোচ।

     

    নিল ম্যাকেঞ্জির জন্য পরিস্থিতিটা একটু অন্যরকম। গত বছর থেকে মূলত বাংলাদেশের সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে কাজ করছেন। পারিবারিক কারণে লাল বলে ব্যাটিং গুরুর দায়িত্ব নেননি। ম্যাকেঞ্জির কাজ নিয়ে অবশ্য দারুণ সন্তুষ্ট ব্যাটসম্যানরা; তামিম, মাহমুদউল্লাহসহ অন্যরা বেশ কয়েকবারই এই দক্ষিণ আফ্রিকানকে নিয়ে তাদের মুগ্ধতার কথা জানিয়েছেন। আকরামও বললেন, টেস্টের জন্যও পূর্ণকালীন একজন ব্যাটিং পরামর্শক দরকার। আর সেটা ম্যাকেঞ্জি হলেই ভালো বলে মনে হয়েছে তাদের। প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে। তবে আকরাম খানের কথা অনুযায়ী, এখনই পুরোদমে সময় দেওয়ার ব্যাপারে মনস্থির করেননি এই দক্ষিণ আফ্রিকান। তবে সামনের ভারত সিরিজের ক্যাম্পে থাকবেন, টি-টোয়েন্টির সময় এমনিতেই থাকবেন দলের সঙ্গে। এরপর ইন্দোরে প্রথম টেস্ট পর্যন্ত থাকতে রাজি হয়েছেন। তবে দ্বিতীয় টেস্ট পর্যন্ত থাকবেন কি না সেটি এখনও নিশ্চিত করে বলতে পারলেন না।

    ৩ নভেম্বর থেকে শুরু তিন টি-টোয়েন্টি ও দুই টেস্টের ভারত সফর। আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশের অভিষেকও হচ্ছে এই সিরিজ দিয়েই।