• বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    আন্তর্জাতিক বিরতিতে নতুন সূচীতে চলবে প্রিমিয়ার লিগ

    গত কয়েকদিনে একের পর এক ইউরোপিয়ান ফুটবল লিগ ও আন্তর্জাতিক ফুটবলের ম্যাচগুলো পিছিয়ে যাওয়ার খবর শুনেছেন আপনি। করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে বাংলাদেশও আফগানিস্তান ও কাতারের সঙ্গে মার্চ মাসের দুইটি বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ বাছাইয়ের ম্যাচ স্থগিত করেছে। তবে এই সময়ে ঘরোয়া ফুটবলের শীর্ষ স্তর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ চলবে নতুন সূচীতে। প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলোর মতের ভিত্তিতে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে পেশাদার লিগ কমিটি।

    বাফুফে ভবনে আজ শনিবার ১৪ মার্চ, জরুরী বৈঠক শেষে পেশাদার লিগ কমিটির চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম মুর্শেদী নতুন সূচীতে লিগ চালু রাখার কথা নিশ্চিত করেছেন। লিগের সূচী অনুযায়ী মার্চের ১৬ তারিখ থেকে এপ্রিলের ৪ তারিখ পর্যন্ত বাংলাদেশের বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচের জন্য বিরতি দেওয়া হয়েছিল। তবে এএফসি ও ফিফার নির্দেশনা অনুযায়ী করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে ২৬ মার্চ (আফগানিস্তান) ও ৩১ মার্চের (কাতার) খেলা দুইটি স্থগিত করেছিল বাফুফে। পরে এএফসি নিশ্চিত করেছে, জুন পর্যন্ত এশিয়া অঞ্চলের বাছাইপর্বের সবগুলো ম্যাচ স্থগিত করেছে তারা। 

    সালাম মুর্শেদী জানিয়েছেন, মাঝের এই বিরতির সময়টায় প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলো খেলা চালিয়ে নিতে মত দিয়েছে, "বর্তমান পরিস্থিতির ভিত্তিতে ক্লাবগুলোর সঙ্গে একমত হয়ে আমরা পরিবর্তিত সূচীতে প্রিমিয়ার লিগ চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এর ভিত্তিতে মার্চে ১৯ তারিখ থেকে নতুন সূচীতে চলবে খেলা।" 

    এর আগে ভেন্যু কমিয়ে আনার প্রস্তাবনার কথা শোনা গেলেও সেটি কার্যকর হচ্ছে না। আগের মতো ৭টি ভেন্যুতেই অনুষ্ঠিত হবে প্রিমিয়ার লিগ। তবে করোনা পরিস্থিতির অবনতি ঘটলে সেক্ষেত্রে পরিস্থিতি বিবচেনায় নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে ইঙ্গিত করেছেন সালাম মুর্শেদী।  

    ঢাকার মাঠে প্রিমিয়ার লিগে দর্শকখরা চললেও, ঢাকার বাইরের পরিস্থিতি ভিন্ন। সেখানে দর্শকের অভাব হয় না। ঝুঁকি এড়াতে বিশ্বের করোনা আক্রান্ত প্রায় সব দেশই নিজেদের নাগরিকদের জনসমাগম এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছে। বাফুফে এক্ষেত্রে ক্লাবগুলোকে মাঠে সমর্থক না আনতে নির্দেশনা দিয়েছে। বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ প্যাভিলিয়নকে জানিয়েছেন, করোনা সতর্কতা ঠেকাতে বাফুফে কর্মকর্তাসহ খেলার মাঠেও খেলোয়াড়দের হ্যান্ডশেক নিরুৎসাহিত করবেন তাঁরা।