• বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    তাজিকিস্তানে চলছে ফুটবল লিগ, বাংলাদেশে আটকে 'আফসোস' বসুন্ধরা ডিফেন্ডারের

    বসুন্ধরা কিংস লেফটব্যাক আখতাম নাজারোভ এখন খানিকটা আফসোসে ভুগতে পারেন। বিশ্বমহামারীর এই সময়ে হাতে গোণা অল্প যে কয়টি দেশ এখনও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়নি তার একটি তাজিকিস্তান। তাই ফুটবলও সেখানে চলছে পুরোদমে। তাজিক জাতীয় দলের অধিনায়ক নাজারোভ আটকা পড়েছেন ঢাকায়। স্বভাবতই নিজ দেশে ‘নিরাপদে’ না  থাকতে পারার আক্ষেপ সঙ্গী হওয়ার কথা তার।   

    এই মুহুর্তে তাজিকিস্তানে থাকলে যে ভালো হত সে ভাবনাটা আড়াল করেননি নাজারোভ,  “ওখানে থাকলে তো ভালোই হত। আমি ফুটবল খেলতে চাই, সেটা যে দেশেই হোক। তবে বসুন্ধরার সঙ্গে আমার চুক্তি আছে, সেটার প্রতি আমার সম্মান দেখাতেই হবে। পরিস্থিতি ঠিক হলে বাংলাদেশেও লিগ শুরু হবে। আশা হারাচ্ছি না আমি।”


    তাজিকিস্তানে ফুটবলের নতুন মৌসুমও শুরু হয়েছে দুদিন আগে। এই দুর্দিনে ঢাকায় হোম কোয়ারেন্টিনে থেকে পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা ছাড়া একরকম নিরুপায়ই তিনি, “দেশে আমার মা, স্ত্রী ও সন্তানরা রয়েছে। ইশ্বরকে ধন্যবাদ যে তারা ভালো আছে। প্রতিদিনই তাদের সঙ্গে যোগাযোগ হচ্ছে আমার।”- ঢাকায় নিজ বাসা থেকে প্যাভিলিয়নকে নাজারোভ জানিয়েছেন তার অবস্থার কথা।

    বিশ্বের প্রায় সব দেশেই এখন ফুটবল বন্ধ। বেলারুশ, বুরুন্ডি ও তাজিকিস্তানের মতো অল্প কিছু দেশকে এখনও কঠিন পথে হাঁটতে হয়নি। এই প্রকোপের ভেতরও এখনও একজন করোনা আক্রান্ত রোগীও সনাক্ত হননি তাজিকিস্তানে। তবে পাশের দেশ উজবেকিস্তানে হানা দিয়েছে করোনা। লিগে আবার সবমিলিয়ে খেলছেন ৪২ জন বিদেশী ফুটবলার, যার মধ্যে ২০ জনই উজবেকিস্তানের। বিশ্ব গণমাধ্যমে তাই তাজিকিস্তানে লিগ শুরুর সংবাদটি বেশ প্রাধান্য দিয়েই প্রচার করা হয়েছে।

    আখতাম অবশ্য মনে করেন, তার দেশের প্রেসিডেন্টের সঠিক সিদ্ধান্তের কারণে এখনও সবকিছু ঠিকঠাক আছে তাজিকিস্তানে, “আমার দেশে এখনও করোনা আঘাত আনেনি। সময়মতো আমাদের প্রেসিডেন্ট সীমান্ত আটকে দিয়েছিলেন। সেটা একটা ভালো সিদ্ধন্তই ছিল মনে হচ্ছে। তাজিকিস্তানে তাই ঘরোয়া ফুটবল লিগের নতুন মৌসুমও শুরু হয়েছে।”

    চলতি মৌসুমের শুরুতে তাজিকিস্তানের ক্লাব ইস্তিকলুল থেকে বসুন্ধরা কিংসে নাম লিখিয়েছিলেন নাজারোভ। অস্কার ব্রুজোনের একাদশে মোটামুটি নিয়মিত সদস্য তিনি। তবে এক মাস যেন সবকিছুই বিপক্ষে যাচ্ছে তার। গত মাসে এএফসি কাপে ‘বিদেশী কোটায়’ বাদ পড়েছিলেন স্কোয়াড থেকে। এর কিছুদিন পর তো খেলাই বন্ধ হয়ে গেল করোনাভাইরাসের কারণে। এখন নিজ দেশের পরিস্থিতি হয়ত স্বস্তি তাকে দিচ্ছে খানিকটা, তবে বিশ্বের যা অবস্থা তাতে নাজারোভের দেশ কয়দিন ‘নিরাপদ’ থাকে সে প্রশ্নের জবাবও তো অজানা।