• ক্রিকেটে করোনাভাইরাস
  • " />

     

    আইসিসির পরবর্তী চেয়ারম্যান পদে লড়তে পারেন গাঙ্গুলি

    আইসিসির পরবর্তী চেয়ারম্যান পদে সৌরভ গাঙ্গুলি লড়তে পারেন। জুলাইয়ে আইসিসির বোর্ড মিটিংয়ে নির্ধারিত হবে শশাঙ্ক মনোহরের উত্তরসূরি কে হবেন। এর আগে এ পদে ইসিবির বিদায়ী চেয়ারম্যান কলিন গ্রেভসের নাম শোনা যাচ্ছিল। তবে ক্রিকইনফো বলছে, এ পদে আগ্রহী হতে পারেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট ও সাবেক ভারত অধিনায়ক গাঙ্গুলি। এরই মাঝে বিসিসিআই এ নিয়ে দৌড়ঝাঁপ শুরুও করেছে। 

    বিসিসিআইয়ের এক কর্মকর্তার দেওয়া সূত্র অনুযায়ী, ইসিবি, পিসিবি এবং সম্ভবত ক্রিকেট আয়ারল্যান্ডের বাইরে সব বোর্ডের কাছ থেকে এ ব্যাপারে ইতিবাচক সাড়াও পেয়েছেন তারা। এরই মাঝে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষ থেকে তাদের ক্রিকেট ডিরেক্টর গ্রায়েম স্মিথ প্রকাশ্যে গাঙ্গুলিকে সমর্থন দিয়েছেন। যদিও পরে এক আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে সিএসএ বলেছে, তারা “এমন গুরুত্বপূর্ণ পদে কে আসবেন, সে নিয়ে কোনও অনুমান করতে চান না”। তবে গাঙ্গুলি এবং বিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে আসন্ন সিরিজ নিয়ে আলোচনার জন্য সিএসএর প্রধান নির্বাহী জ্যাক ফাউল ও স্মিথের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে, এরপরই স্মিথ গাঙ্গুলিকে আইসিসির চেয়ারম্যান পদে সমর্থন দিয়ে কথা বলেছেন। 

    “আইসিসির প্রেসিডেন্ট (আদতে চেয়ারম্যান) এখন ক্রিকেটের ঠিক পথে সামনে এগুনোর জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ এক পদ। সৌরভ গাঙ্গুলির মতো ক্রিকেটীয় ব্যক্তিকে কাউকে এ পদে দেখতে পারা হবে দারুণ”, এক টেলিকনফারেন্সে বলেছিলেন স্মিথ। 

    আইসিসির চেয়ারম্যান পদটি সৃষ্টি হয়েছিল ২০১৪ সালে, ‘বিগথ্রি’-এর ব্যাপার সামনে আসার পর। যে পদে প্রথম দায়িত্ব নিয়েছিলেন বিসিসিআইয়ের সাবেক প্রেসিডেন্ট এন শ্রীনিবাসন, যদিও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি।

    গত অক্টোবরে বেশ নাটকীয়তার পর বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট হয়েছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলি/বিসিসিআই/ক্রিকইনফো


    ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থার সাধারণ সভায় উপস্থিত ছিলেন, কোনও বোর্ডের যে কোনও প্রতিনিধি এ পদে দাঁড়াতে পারবেন। আইসিসির এ সভায় উপস্থিত ১৫ জন সদস্য তাদের প্রার্থী বাছাই করবেন, দুই বা ততোধিক ভোট পাওয়া প্রতিনিধি তখন প্রার্থী হবেন। আইসিসির সংবিধান অনুযায়ীর আগের দুবারের চেয়ারম্যান মনোহর আরেকবার প্রার্থী হওয়ার সুযোগ রাখেন, তবে তিনি এ দায়িত্ব আর পালন করবেন না বলেই জানা গেছে। 

    শেষ অক্টোবরে বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট হয়েছেন গাঙ্গুলি। অবশ্য তাদের সংশোধিত গঠনতন্ত্র অনুযায়ী, গাঙ্গুলিকে এ পদ থেকে সামনের জুলাইয়ে সরে গিয়ে ‘কুলিং-অফ’ পিরিয়ডে যেতে হবে তিন বছরের জন্য। অবশ্য এ নিয়ম শিথিল করার আবেদন করা হয়েছে আদালতে, তবে আদালত এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক শুনানির আয়োজন করেননি এখনও। 

    গাঙ্গুলি ছাড়াও আইসিসির সর্বোচ্চ পদের জন্য বিসিসিআইয়ে আরও সম্ভাব্য প্রার্থী আছেন কয়েকজন, তবে বর্তমান প্রেসিডেন্টের দিকেই সমর্থন বেশি বলে জানিয়েছে ক্রিকইনফো। 

    অবশ্য গাঙ্গুলি শেষ পর্যন্ত এ পদের জন্য লড়াইয়ে নামলে সেটি ইসিবি বা গ্রেভস কীভাবে নেবেন, সেটি দেখার বিষয়। ক্রিকইনফোর মতে, গত ডিসেম্বরে গাঙ্গুলিসহ বিসিসিআইয়ের কয়েকজন প্রতিনিধি গ্রেভসের সঙ্গে দেখা করে এসেছেন লন্ডনে, এবং সে বৈঠকে তার প্রার্থীতাকে সমর্থনই দিয়েছিলেন তারা। 

    তবে কভিড-১৯ মহামারিতে বদলে যাওয়া পরিস্থিতিতে গাঙ্গুলি অন্যান্য বোর্ডের সমর্থন পান কিনা, সেটি দেখতে চায় বিসিসিআই। ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থায় নিজেদের শক্তির জায়গা জোরালো করতে চায় ভারতের ক্রিকেট বোর্ড, যাদের মতে, মনোহর চেয়ারম্যান হওয়ার পর কমে গেছে সেটি। 

    অবশ্য কভিড-১৯ এর কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতির কারণে মনোহরের দায়িত্বের মেয়াদ কয়েক মাস বাড়তে পারে, সম্ভাবনা আছে এমনও।