• ক্রিকেটে করোনাভাইরাস
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    অসদাচরণের অভিযোগে বরখাস্ত এসিবির প্রধান নির্বাহী

    বরখাস্ত করা হয়েছে আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড, এসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা লুতফুল্লাহ স্ট্যানিকজাইকে। সোমবার বোর্ডের চেয়ারম্যান ফারহান ইউসেফজাইয়ের স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে স্ট্যানিকজাইকে, এক বিবৃতিতে জানিয়েছে এসিবি। 

    স্ট্যানিকজাইকে বরখাস্ত করার পেছনে দেখানো হয়েছে তিনটি কারণ- অব্যবস্থাপনা, অসন্তোষজনক পারফরম্যান্স ও অসদাচরণ। শেষেরটি বোর্ড ম্যানেজারদের সঙ্গে করা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। 

    চিঠি দেওয়ার পর ২৯ জুলাই তার শেষ কর্মদিবস হবে, এর মাঝে সবরকমের নথিপত্র হস্তান্তর করতেও বলা হয়েছে তাকে। এর আগে মৌখিক ও লিখিত সতর্কতা জারি করা হয়েছিল বলেও চিঠিতে স্ট্যানিকজাইকে মনে করিয়ে দিয়েছেন এসিবি চেয়ারম্যান। 

    “এসিবি চেয়ারম্যান স্ট্যানিকজাইয়ের সিরিয়াস অসদাচরণ আমলে নিয়ে তাকে প্রধান নির্বাহীর পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছেন”, বিবৃতিতে বলা হয়েছে এমন। 

    “উন্মুক্ত প্রতিযোগিতার মাধ্যমে বোর্ডের নির্বাহী পরিচালক পদ ঘোষণা করা হবে এবং ক্রিকেট বোর্ডের মানবসম্পদ বিভাগের (এইচআর- হিউম্যান রিসোর্স) নীতি অনুযায়ী একজন উপযুক্ত প্রার্থীকে নির্বাচন করা হবে।” 

    ক্রিকবাজ বলছে, এ পদে এগিয়ে আছেন ইনামুল্লাহ শিরজাদ। 

    দুই সপ্তাহ আগে ২০১৮ সালে ঘরোয়া লিস্ট এ টুর্নামেন্টে জালিয়ারি আশ্রয় নেওয়ার দায়ে বরখাস্ত করা হয়েছে এসিবির ডমেস্টিক ম্যানেজার হাসতি গুল আবেদকেও। এর আগে এসিবির বেশ কিছু পদে কাজ করেছিলেন আবেদ, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মেনেও নিয়েছেন তিনি। 

    এ নিয়ে গত দেড় মাসের ব্যবধানে তিনটি টেস্ট খেলুড়ে দেশের বোর্ডের ক্রিকেট নির্বাহীর পদ শূন্য হলো বা অদল-বদল এলো। জুনে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া কেভিন রবার্টসকে এ পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছিল করোনাকালীন আর্থিক দিক সামলাতে না পারার ব্যর্থতার কারণে। তার জায়গায় অন্তবর্তীকালীন নিয়োগ দেওয়া হয়েছে স্থগিত হয়ে যাওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের অস্ট্রেলিয়া আয়োজক কমিটির প্রধান নিক হকলিকে।

    আর বিসিসিআইয়ের প্রধান নির্বাহী রাহুল জহরি পদত্যাগ করেছেন জুলাইয়ের দ্বিতীয় সপ্তাহে। অবশ্য সৌরভ গাঙ্গুলির নেতৃত্বে নতুন গভর্নিং বডি আসার পরপরই পদত্যাগের ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন তিনি। তার জায়গায় অন্তর্বর্তীকালিন পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে বিসিসিআইয়ের আইপিএলের চিফ অপারেটিং অফিসার হেমাং আমিনকে। 

    এর আগে গত বছর ডিসেম্বরে অসদাচরণের দায়ে বরখাস্ত করা হয়েছিল ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকার তখনকার প্রধান নির্বাহী থাবাং মোরোইকে। সে বোর্ডেও এখন অন্তর্বর্তীকালিন দায়িত্ব পালন করছেন জ্যাক ফাউল। 
     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন