• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    এখনও পথের অনেকটুকুই বাকি দেখছেন ক্লপ

    চ্যাম্পিয়নস লিগ, ক্লাব বিশ্বকাপ আগেই জেতা হয়ে গেছে, এবার ঐতিহাসিক প্রিমিয়ার লিগ শিরোপাও ধরা দিল লিভারপুলের কাছে। তবে গত মৌসুম এবং চলতি মৌসুমে ইয়ুর্গেন ক্লপের অধীনে লিভারপুলের এই অভূতপূর্ব সাফল্যের ধারা কি অব্যাহত থাকবে সামনের মৌসুমগুলোতে? লিগ জয়ের আনন্দ ঠিকঠাক উদযাপনের আগেই সিটির বিপক্ষে ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে ক্লপের সামনে ছুড়ে দেওয়া হল এই প্রশ্ন। প্রতি উত্তরে ক্লপ জানালেন, নিউজিল্যান্ডের রাগবি দল যারা ‘অল ব্ল্যাকস’ নামে পরিচিত, তাদের সাফল্যের গল্পকেই লিভারপুলের ধারাবাহিক সাফল্যের জন্য অনুপ্রেরণা হিসেবে ব্যবহার করবেন তিনি।


    নিজের কোচিং ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে ‘অল ব্ল্যাকস’দের নিয়ে বানানো একটি তথ্যচিত্র দেখেছিলেন ক্লপ। রাগবি ইউনিয়নের সবচেয়ে প্রভাবশালী দল ‘অল ব্ল্যাকস’রা টানা দুইবার রাগবি বিশ্বকাপ জয় করেছিল। তাদের জয়ের রেকর্ডের ধারেকাছে নেই আর কেউ। পেশাদার ক্রীড়ায় ধারাবাহিক সাফল্যের ক্ষেত্রে ‘অল ব্ল্যাকস’দের কৃতিত্বকে অনেকেই মাপকাঠি হিসেবে দেখেন। তথ্যচিত্রটিতে কিউই রাগবি দলের সাফল্য গাঁথার পিছনের গল্পগুলো সবিস্তারে বর্ণনা করেছেন দলের খেলোয়াড়রা। ‘অল ব্ল্যাকস’দের সেই অনুপ্রেরণাদায়ী গল্পকেই অলরেডদের এগিয়ে নেওয়ার জন্য কাজে লাগাতে চান ক্লপ।

    ক্লপের মতে, লিভারপুল এখনও সাফল্যের চূড়ায় পৌঁছায়নি, বরং সেই পথের মাঝে এখন অবস্থান করছে, “আমরা কিছু একটার মধ্যে আছি, শেষে নয়। ক্যারিয়ার শেষ করার আগ পর্যন্ত আমাদের সবকিছু দিয়ে খেলতে হবে। যতদিন এই জার্সি গায়ে থাকবে, ততদিন শতভাগের চেয়ে কম দেওয়া মানা।”

    “আর এটা আমার কথা নয়, এটা অল ব্ল্যাকসদের বাক্য। তাদের নিয়ে দারুণ একটি তথ্যচিত্র দেখেছিলাম আমি। তারপর সেটা আমার কাছেই রেখে দিয়েছি। আমার এবং লিভারপুলের প্রতিটি খেলোয়াড়ের সেই কথাটি অবশ্যই মানতে হবে। আমরা ম্যান সিটির বিপক্ষে ম্যাচের জন্য নিজেদের ভালোভাবে তৈরি করেছি। আগামী মৌসুমেও আমরা একই উদ্যমে খেলব। আমি অন্য কোনওভাবে খেলতে জানি না। আমি মনে করি, যখনই আপনি ভাববেন আপনি চূড়ায় পৌঁছে গেছেন, তখন থেকেই আপনার পতন শুরু হয়। আমার এখনও তেমন অনুভূতি হয়নি। আমি এখনও পুরোপুরি সন্তুষ্ট নই।”

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন