• এএফসি কাপ
  • " />

     

    বসুন্ধরা কিংসের প্রথম এএফসি কাপ যাত্রা থামল এক ম্যাচেই

    হের্নান বার্কোস, রবসন রবিনহো, জোনাথন ফার্নান্দেজরা ঢাকায় এলেন সকালে। বিকেল নাগাদ বসুন্ধরা কিংসের সেই আনন্দে অবশ্য ভাটা পড়ল। এএফসি জানিয়ে দিয়েছে এবার আর এএফসি কাপ হচ্ছে না। ১০ এপ্রিল এক বৈঠকের পর এএফসি কাপ বাতিলের সিদ্ধান্ত জানিয়েছে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন। এএফসি কাপ ২০২০ এর আসর বাতিল করলেও এএফসি চ্যাম্পিয়নস লিগ আয়োজনের ব্যাপারে এখনও অনড় আছে তারা।

    এএফসি কাপে বসুন্ধরা কিংসের প্রথম যাত্রা তাই থামল এক ম্যাচ খেলেই। মার্চে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার বার্কোসের ৪ গোলে মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টসকে ৫-১ ব্যবধানে উড়িয়ে দিয়ে দারুণ শুরু করেছিল বসুন্ধরা। কিন্তু এরপরই বৈশ্বিক মহামারির কারণে স্থগিত ঘোষণা করা হয় এএফসি কাপ। এর তিন মাস পর অবশ্য মালদ্বীপকে ভেন্যু ঘোষণা করে গ্রুপ পর্বের বাকি ম্যাচগুলো খেলার জন্য অক্টোবরে নতুন দিন-তারিখ নির্ধারণ করেছিল এএফসি। নতুন ফিক্সচার ও দলবদলের সময়সূচিও জানিয়েছিল তারা। তবে বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ বাছাইয়ের ম্যাচগুলোর মতো এবারও সেই সিদ্ধান্ত বদলাতে বাধ্যই হয়েছে এএফসি। তারা জানিয়েছে, বৈশ্বিক মহামারি চলার সময় এশিয়ার পাঁচ অঞ্চলে আলাদা করে টুর্নামন্ট আয়োজন করা সম্ভব হচ্ছে না তাদের পক্ষে।
     


    গত কয়েক মাসে বসুন্ধরা কিংসেও অবশ্য এসেছে বড় পরিবর্তন। বার্কোস তো আগেই ছিলেন। বসুন্ধরার জার্সিতে ওই এক ম্যাচ খেলেই মহামারি শুরুর পর দেশে ফিরে গিয়েছিলেন তিনি।  দানিয়েল কলিনদ্রেসসহ বাকি বিদেশীদের সঙ্গে চুক্তি নবায়ন না করে এএফসি কাপ সামনে রেখেই নতুন দুইজন ব্রাজিলিয়ান ফুটবলার দলে  ভিড়িয়েছিল বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নরা। এদের ভেতর রবসন রবিনহোকে বসুন্ধরা দলে নিয়েছিল ফ্লুমিনেসে থেকে। আরেক মিডফিল্ডার জোনাথন ফার্নান্দেজও বসুন্ধরায় যোগ দেওয়ার আগ পর্যন্ত খেলছিলেন ব্রাজিলিয়ান লিগে।

    এএফসি কাপের জন্য সেপ্টেম্বর থেকেই অনুশীলনও শুরু করেছিল বসুন্ধরা কিংস। তবে টুর্নামেন্ট বাতিল হয়ে যাওয়ায় এখন ঘরোয়া লিগের দিকেই চোখ অস্কার ব্রুজোনের দলের। তবে সেই লিগ কবে শুরু হবে তা নিয়েও আছে অনিশ্চয়তা।     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন