• বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ ২০২০
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    বিসিবির পরবর্তী টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে খেলবেন সাকিব

    নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে বিসিবির পরবর্তী টুর্নামেন্টে-- যেটি হবে টি-টোয়েন্টি-- খেলবেন সাকিব আল হাসান। নভেম্বরের ১৫ তারিখ থেকে শুরু হতে পারে ৫ দলের এই টুর্নামেন্ট, সেখানে খেলবেন বলে বিসিবিকে নিশ্চিত করেছেন সাকিব, এমন জানিয়েছেন বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন। 

    অক্টোবরের ২৯ তারিখে শেষ হবে সাকিবের এক বছর স্থগিত নিষেধাজ্ঞাসহ আইসিসির দেওয়া দুই বছরের শাস্তি, এরপর থেকেই ক্রিকেটে ফিরতে পারবেন তিনি। মাঝে শ্রীলঙ্কা সফরকে সামনে রেখে দেশে এলেও সেটি স্থগিত হয়ে যাওয়ায় যুক্তরাষ্ট্রে পরিবারের কাছে ফিরে গিয়েছিলেন তিনি। 

    “সাকিব চলে আসবে। সাকিব ১০ তারিখের দিকেই চলে আসছে”, বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের ফাইনালের পর রবিবার সাংবাদিকদের বলেছেন পাপন। “টুর্নামেন্টের আগে তো বটেই, আরও আগেও হতে পারে। ও এক সপ্তাহ বা ১০ দিন আগে অবশ্যই আসবে। ও আমাদের এই টুর্নামেন্ট খেলবে এটা নিশ্চিত করেছে। এর মধ্যে ওর দলও হয়ে যাবে।”

    কোভিড-১৯ মহামারির পর এই টুর্নামেন্ট দিয়েই ঘরোয়া ক্রিকেট ফিরেছে বাংলাদেশে। তবে নিষেধাজ্ঞার মাঝে থাকায় এখানে খেলেননি সাকিব। ৩ দলের এই টুর্নামেন্টের পর বিসিবি এখন আয়োজন করবে একটি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট, যেটি ৫ দলের হবে এবং সেখানে কোনো বিদেশী ক্রিকেটার থাকবেন না বলে জানিয়েছেন পাপন। 

    “পরবর্তী ধাপ যেটা- আমরা একটা টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট করতে চাচ্ছি। যেটি হবে পাঁচ দলের। এখন পর্যন্ত আমাদের সিদ্ধান্ত সব স্থানীয় খেলোয়াড় নিয়ে করব। পাঁচ দল নিয়ে করায় আরও বেশ কিছু ছেলে সুযোগ পাবে। আরও ৩০ জন আমাদের আসবে। এটা চ্যালেঞ্জিং হবে। অনেকে বলেছে তিন দল করতেই তো ‘জান শেষ’। এটা কঠিন কিন্তু আমরা এই চ্যালেঞ্জটা নিচ্ছি।”

    প্রেসিডেন্টস কাপের বায়ো-সিকিউর বলয়ের মাঝে ক্রিকেট ফেরানোর চ্যালেঞ্জের সঙ্গে এ টুর্নামেন্টের পেছনে আন্তর্জাতিক দল আনার পরিবেশ তৈরি করার উদ্দেশ্যের কথাও আবার জানিয়েছেন তিনি, “ক্রিকেট মাঠে ফেরানো ছিল বড় চ্যালেঞ্জ। সব সময় মনের ভেতর ভয় ছিল যে এই টুর্নামেন্ট হতে গিয়ে যদি কোন ছেলে আক্রান্ত হয় তখন এটাতে কী হবে। দায়-দায়িত্ব কে নেবে। এইজন্য যতটুকু সুরক্ষিত করার চেষ্টা করেছি। 

    “বায়ো-বাবল মেনে চলেছি। এর উদ্দেশ্য হলো আমাদের এখানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আনতে পারব কিনা, আমরা গিয়ে বাইরে খেলতে পারব কিনা। কারণ সব দেশে একই রকম নিয়ম থাকবে। ওদের খাপ খাওয়ানোর জন্য করেছি এটা। তিন দলই কাছাকাছি ছিল। তিন দলই ভাল ছিল।”

    টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টেও প্রেসিডেন্টস কাপের মতো দল গড়ে দেওয়ার ইচ্ছার কথা জানিয়েছেন তিনি। সাধারণত 'বিপিএলে যেসব স্পন্সর আসতে পারে না', তাদেরকে দল নেওয়ার আমন্ত্রণ জানাবে বিসিবি। তবে স্পন্সরদের চাহিদা অনুযায়ী দল বাছাইয়ে প্লেয়ারস ড্রাফট পদ্ধতিতেও যেতে পারেন তারা।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন