• বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ ২০২০
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের ফিটনেস টেস্টের জন্য ১১৩ ক্রিকেটারের মাঝে সাকিব

    টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের ফিটনেস টেস্ট দিতে ৯ নভেম্বরের আগেই ঢাকা আসছেন সাকিব আল হাসান। প্লেয়ারস ড্রাফটের আগে ১১৩ জন ক্রিকেটারকে ডেকে পাঠিয়েছে বিসিবি, যাদের মাঝে আছেন তিনিও। ৯ ও ১০ নভেম্বর মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এই টেস্ট দিতে হবে তাদের। মূলত যারা বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপে খেলেননি, তারাই দেবেন এই টেস্ট। 

    কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে মাস্ক পরে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে তাদেরকে টেস্ট দিতে হবে। এক বিবৃতিতে বিসিবি জানিয়েছে, ‘ড্রাফটের জন্য সম্ভাব্য ক্রিকেটারদের জন্য এই টেস্ট ‘বাধ্যতামূলক’। “আসছে টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে প্লেয়ারস ড্রাফটের জন্য প্রত্যাশিত ক্রিকেটারদের ফিটনেস যাচাই করে দেখার জন্য এই টেস্ট করা হবে”, বিবৃতিতে জানিয়েছে বিসিবি। 


    ১১৩ জন ক্রিকেটারদের তালিকায় সবার ওপরেই আছে সাকিবের নাম, ৯ নভেম্বর ১০-১১টার মাঝে এই টেস্ট দেবেন তিনি। এর আগে বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছিলেন, টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে খেলার কথা সাকিব নিশ্চিত করেছেন তাদের, সে টুর্নামেন্টের আগেই যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে এসে পৌঁছাবেন তিনি। বর্তমানে পরিবারের সঙ্গে সেখানে আছেন সাকিব। 

    ২৮ অক্টোবর আইসিসির দেওয়া এক বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষ হয়েছে সাকিবের। এর আগে শ্রীলঙ্কা সফরকে সামনে রেখে অনুশীলনের জন্য দেশে ফিরেছিলেন সাকিব, বিকেএসপিতে ব্যক্তিগত উদ্যোগে সেটি করেছেনও। তবে শ্রীলঙ্কা সফর স্থগিত হয়ে যাওয়ার পর আবারও যুক্তরাষ্ট্র ফিরে গিয়েছিলেন তিনি। বুধবার হালনাগাদ করা আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ে ওয়ানডে অলরাউন্ডারের তালিকায় আবারও এক নম্বরে ফিরে এসেছেন তিনি।

    নিষেধাজ্ঞা শেষ হয়নি বলে তিন দলের বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপে খেলেননি সাকিব, এ টুর্নামেন্ট দিয়েই ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরেছে বাংলাদেশ। আপাতত সামনের বছরের শুরুতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বাংলাদেশ সফরের আগে সম্ভাব্য সিরিজ নেই জাতীয় দলের, এর আগে এই টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট করছে বিসিবি। কোভিড-১৯ এর কারণে এবার হচ্ছে না বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ। 

    আরও পড়ুন-- নিষেধাজ্ঞার 'নরক' পেরিয়ে এবার কোন পথে সাকিব?


     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন