• বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ ২০২০
  • " />

     

    অনাকাঙ্খিত আচরণের জন্য ক্ষমা চাইলেন মুশফিক

    অনাকাঙ্খিত আচরণের জন্য ক্ষমা চাইলেন মুশফিক    

    সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তোলপাড় কাল থেকেই। বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে বরিশালের বিপক্ষে ম্যাচে খেলার সময় বার বার মেজাজ হারিয়ে ফেলছিলেন ঢাকা অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। একটা সময় সতীর্থ নাসুম আহমেদের গায়ে প্রায় হাত তুলতেই গিয়েছিলেন। সেই ঘটনার ছবি ও ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে শুরু হয় তুমুল সমালোচনা। অবশেষে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক পোস্টে সেই অনাকাঙ্খিত ঘটনার জন্য ভক্ত-সমর্থক, মাসুম ও পরম করুণাময়ের সঙ্গে ক্ষমা চাইলেন মুশফিক। নাসুমের সঙ্গে হাস্যোজ্জ্বল একটা ছবি দিয়ে এই বার্তা পোস্ট করেছেন আজ নিজের ফেসবুক পেজে। 

    Assalamualaikum to all, First of all officially I would like to apologize to all my fans and spectators regarding the...

    Posted by Mushfiqur Rahim on Monday, December 14, 2020
    ক্রিকেটে মেজাজ হারিয়ে ফেলার মতো ঘটনা যে ঘটে না তা নয়। তবে সেজন্য সতীর্থের গায়ে হাত তুলতে যাওয়ার ঘটনা বিরলই। তাও একবার, দুই দুইবার এমনটা করতে গিয়েছিলেনমুশফিক। নাসুমের সঙ্গে এই ঘটনার পর তাই শুরু হয়ে যায় তুমুল সমালোচনা। কেউ কেউ অবশ্য বলছিলেন, খেলার মাঠে এমন কিছু হতে পারে। তবে মুশফিকের সমালোচনাই হয়েছে বেশি। আজ সেই ঘটনার জন্য কোনো অজুহাত না দিয়ে সরাসরি ক্ষমা চাইলেন মুশফিক, 'আসসালামু আলাইকুম। প্রথমেই আমি ভক্ত-স্মর্থক ও দর্শকদের কাছে কালকের ঘটনার জন্য ক্ষমা চাইছি। আমি ম্যাচ শেষেই সতীর্থ নাসুম আহমেদের কাছে ক্ষমা চেয়েছি। দ্বিতীয়ত, আমি পরম করুণাময়ের কাছেও ক্ষমা চেয়েছি। আমি সবসময় মনে করার চেষ্টা করি, সবার ওপরে আমি  একজন মানুষ। যে ব্যবহার আমি দেখিয়েছি, সেটা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। ইনশাআল্লাহ ভবিষ্যতে মাঠ ও মাঠের বাইরে এ ধরনের কোনো কিছুর পুনরাবৃত্তি হবে না। জাজাকাল্লাহ খায়ের।'

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন