• রিও ২০১৬
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    উদোম গায়েই সমাপনীর মঞ্চে!

    রিও অলিম্পিকে টোংগ নামক ওশেনিয়ার ছোট্ট দ্বীপদেশটির পতাকা বাহক ছিলেন তিনি। অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানেই সবার নজর কেড়েছিলেন পিটা নিকোলাস তওফাতোফুয়া। ইন্টারনেটের দুনিয়ায় হয়ে উঠেছেন আলোচিত নাম। এই তায়কোয়ান্দো অ্যাথলেট তাঁর দেশের পতাকা বহন করেছিলেন খালি গায়ে, পরনে ছিল তাঁদের ঐতিহ্যবাহী পোশাক তা’ওভালা। তেলমাখা শরীরে কেবল নিম্নাংশ আবৃত করে অলিম্পিকের অনুষ্ঠানে পতাকা বহনের দৃশ্য দেখে চমকে গিয়েছিলেন অনেকেই। একটা কৌতূহলেরও সৃষ্টি হয়েছিল, সমাপনীতে পিটা কি করেন সেটা দেখার!

     

    তওফাতোফুয়া কথা দিয়েছিলেন একই রকম পরিধেয়তে সমাপনীর মঞ্চে আসবেন তিনি। কথা রেখেছেনও। এ যাত্রায় তা’ওভালর উপরের অংশে বড় করে ইংরেজী অক্ষরে লেখা ছিল তাঁর দেশের নাম। অবশ্য শরীরে তেলের পরিমাণটা এবার একটু কমই ছিল বোধহয়, অনুষ্ঠানের আগে মারাকানায় হয়ে যাওয়া বৃষ্টিতেই ধুয়ে গেলো কিনা!

     

     

    উদ্বোধনী এবং সমাপনী অনুষ্ঠানের মঞ্চে সবার মন জিতে নিলেও তায়কোয়ান্দোতে জিততে পারেন নি পিটা তওফাতোফুয়া। নিজের একমাত্র দ্বৈরথে ইরানের সাজ্জাদ মারদানির কাছে হেরেছেন ১৬-১ ব্যবধানে। তবে পরাজয় নিয়ে কষ্ট নেই তাঁর, “ঐতিহ্যবাহী পোশাকে টোংগার প্রতিনিধিত্ব করতে আসতে পেরেই আমি খুশি। কোনো অজুহাত দেবো না, শুরুটা ভালো করতে পারি নি তাই হেরে গেছি। তাও হেরেছি একজন কিংবদন্তির কাছে, যিনি ইরানের সেরা খেলোয়াড়। কখনো মানুষ জেতে, আর কখনো শেখে।”

     

    প্রথমবার খেলতে এসে অভিজ্ঞতা অর্জনটুকুই প্রাপ্তি মানলেও ভবিষ্যতে নিজেদের প্রমাণ করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ তওফাতোফুয়া। নিজের ইন্সটাগ্রাম অ্যাকাউন্টে অলিম্পিক নিয়ে পিটা লিখেন, “এখানে আসতে আমার বিশ বছর লেগেছে। আরও যদি বিশ বছর যায় যাক না, একদিন আমরা স্বর্ণপদক নিয়েই ফিরবো। ধন্যবাদ সবার ভালোবাসা, দোয়া ও সমর্থনের জন্য।”

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন