• আইসিসি বিশ্বকাপ ২০১৫
  • " />

     

    ম্যাককালাম তখন ধূমপান করছিলেন!

    রোম যখন পুড়ছিল সম্রাট নিরো নাকি তখন বাঁশি বাজাচ্ছিলেন! গত বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ড যখন দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে স্নায়ুক্ষয়ী লড়াইয়ে ব্যস্ত, কিউই অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককালাম তখন কী করছিলেন জানেন? বাথরুমে ঢুকে সিগারেট ফুঁকছিলেন!

    না, কোনো অনুসন্ধানী সংবাদিক নয়। ম্যাককালাম নিজেই জানিয়েছেন এ কথা। ২০১৫ বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে অকল্যান্ডে দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হয়েছিল নিউজিল্যান্ড। স্নায়ুক্ষয়ী উত্তেজনার সে ম্যাচের শেষ ওভারে জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ১২ রান। পুরো নিউজিল্যান্ড দল তখন দাঁড়িয়ে দিল উত্তেজনায়। কিন্তু টিভি ক্যামেরা খুঁজে পাচ্ছিল না খোদ অধিনায়ককে। সদ্য প্রকাশিত আত্মজীবনী ‘ডিক্লেয়ার্ডে’ রহস্যটা পরিষ্কার করেছেন ম্যাককালাম। উত্তেজনায় কাতর হয়ে তিনি তখন আশ্রয় নিয়েছিলেন ড্রেসিংরুমের বাথরুমে। খাবার দেয়ার দায়িত্বে থাকা দুই ভারতীয়ের সঙ্গে সিগারেট ফোঁকায় ব্যস্ত ছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত এক বল বাকি থাকতেই ছক্কা মেরে কিউইদের জিতিয়ে দেন অলরাউন্ডার গ্রান্ট এলিয়ট। বাথরুম থেকে বেরিয়ে উল্লসিত অধিনায়ক যোগ দেন দলের সঙ্গে।

    আত্মজীবনীতে ম্যাককালাম স্বীকার করেছেন দলের খেলা বাইরে বসে দেখার চেয়ে ড্রেসিংরুমে বসে দেখতে পছন্দ করেন তিনি। আর উত্তেজনার মুহূর্তগুলোতে শরণ নেন ধুম্র শলাকার। কোচের সঙ্গে বসে ম্যাচের পরিস্থিতি আলোচনা করার চেয়ে নিজের বুদ্ধির গোড়ায় ধোঁয়া দেয়াটাই  যুক্তিযুক্ত মনে হয় তাঁর। তাই দল যখন প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ ফাইনালে উঠিউঠি করছে তখন ‘বাথরুম থেরাপি’ নিতেই ব্যস্ত ছিলেন এই সাবেক উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন