• ভারত-নিউজিল্যান্ড
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    ধোনিদের জার্সিতে কাদের নাম?

    বিশাখাপত্নমে ভারত-নিউজিল্যান্ড সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে মহেন্দ্র সিং ধোনি যখন টস করতে আসলেন, তাঁর জার্সির পেছনের লেখা দেখে রীতিমত অবাক সবাই।  ধোনির বদলে ‘দেভকি’ লেখা কেন? একই কাজ করেছেন দলেন আরও দুই ব্যাটসম্যান অজিঙ্কা রাহানে এবং বিরাট কোহলি। তাদের জার্সির নামটা মেয়েদের নামে কেন?

     

    কিন্তু কেনো এই কাণ্ড করলেন তাঁরা? এটার জন্য যেতে হবে আরও কিছুদিন পেছনে। ভারতীয় ক্রিকেট দলের স্পনসর ‘স্টার ইন্ডিয়া’। তাঁদের নতুন প্রচারণার সদস্য হয়েছেন এই তিনজন ক্রিকেটার। একজন মানুষের জীবনে মায়ের ভূমিকা কতখানি, সেটা বোঝাতেই চ্যানেলটির এই অভিনব উদ্যোগ। গত  ১৬ অক্টোবর রাত থেকেই টিভির পর্দায় দেখা যায় এই বিজ্ঞাপনটি। ‘নায়ি সোচ(নতুন চিন্তা)’ বলে এই বিজ্ঞাপনে দেখা যায়, তিন ক্রিকেটারই মায়ের নাম লেখা জার্সি পরেছেন। ধোনির জার্সিতে আছে ‘দেভকি’, কোহলির পিঠে ‘সরোজ’ এবং রাহানের জার্সিতে আছে ‘সুজাতা’র নাম।

     

     

    বিজ্ঞাপনে প্রথমে ধোনিকে জিজ্ঞাসা করা হয় তিনি কেন মায়ের নামে জার্সি পড়েছেন। তখন ধোনি বলেন, “এত বছর ধরে যখন বাবার নাম লেখা জার্সি পরছিলাম, তখন তো আপনারা জিজ্ঞাসা করেননি কোন উপলক্ষে এটা পরেছি!” এরপর কোহলিকে একই প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, “আমি যতটুক কোহলি, ততটুকই সরোজ।” রাহানে এই একই প্রশ্নের জবাবে বলেন, “সবাই বলে বাবার নাম উজ্জ্বল করো। কিন্তু আমার কাছে মায়ের নাম উজ্জ্বল করাও গুরুত্বপূর্ণ।”

     

    স্টার ইন্ডিয়ার ম্যানেজিং ডিরেক্টর সঞ্জয় গুপ্তা এই বিজ্ঞাপন নিয়ে খুবই উচ্ছ্বসিত, “আমরা বিসিসিআই এর সাথে যুক্ত থাকতে পেরে আনন্দিত। আমরা সবসময়ই মেয়েদের প্রাধান্য দিয়েছি, তাঁদের পেছনের গল্পগুলো বলার চেষ্টা করেছি। এখন আমরা এটিকে নতুন মাত্রায় নিয়ে যেতে চাই।”

     

    ধোনি, কোহলি এবং রাহানে তিনজনই খুব সাধারণ পরিবার থেকে উঠে এসেছেন। কিছুদিন আগে মুক্তি পাওয়া ‘এমএস ধোনি-দা আনটোল্ড স্টোরি’ সিনেমার মাধ্যমে সবাই জেনেছে ধোনির মা দেভকি কতোটা সংগ্রাম করে ছেলেকে এতদূর নিয়ে এসেছেন। অল্প বয়সেই বাবা হারানো কোহলিকে বলতে গেলে একাই মানুষ করেছেন মা সরোজ। রাহানের মা সুজাতাও ছেলের এই সাফল্যের পেছনে অনেক বড় ভূমিকা রেখেছেন।

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন