• দক্ষিণ আফ্রিকা-অস্ট্রেলিয়া
  • " />

     

    অস্ট্রেলিয়াকে পথ দেখাচ্ছেন খাজা

    সংক্ষিপ্ত স্কোর

    দক্ষিণ আফ্রিকা ২৫৯/৯ ডিক্লে

    অস্ট্রেলিয়া ৩০৭/৬ ( খাজা ১৩৮*, অ্যাবট ৩৮/৩)


     

     

    অনেকদিন পর হয়তো রাতে একটু শান্তিতে ঘুমাতে পারবেন স্টিভ স্মিথ। সেটির পেছনে একজন মানুষের অবদান অনস্বীকার্য, তিনি উসমান খাজা। তাঁর ১৩৮ রানের অসাধারণ এক ইনিংস অ্যাডিলেডে অস্ট্রেলিয়াকে নিয়ে গিয়েছে সুবিধাজনক অবস্থায়। দ্বিতীয় দিন শেষে ৪৮ রানে এগিয়ে আছে অস্ট্রেলিয়া।

     

    দিনের চতুর্থ ওভারেই ডিন এলগারের দুর্দান্ত এক ক্যাচে নবাগত রেনশকে ফেরান কাইল অ্যাবট। নিজের ক্যারিয়ারে মাত্র তৃতীয়বারের মতো ওয়ান ডাউনে নামা ডেভিড ওয়ার্নারও টিকতে পারেননি বেশি সময়। ১১ রানেই অ্যাবটের বলে প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন।

     

    ম্যাচের আগে স্মিথের ওপর পর্বতসমান চাপ ছিল। তবে আজ ব্যাটিংয়ে সব চাপকে পেছনে ফেলেছেন। উসমান খাজার সাথে গড়েন ১৩৪ রানের অসাধারন এক জুটি। নিজের ১৮ তম হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে বড় স্কোরের আভাস দিচ্ছেন। কিন্তু বিধিবাম! খাজার সাথে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউট হলে হতাশা নিয়েই ফিরতে হয় অজি অধিনায়ককে।

     

    অভিষেক হওয়া পিটার হ্যান্ডসকম্ব নেমে খাজাকে দারুণ সঙ্গ দিচ্ছিলেন। নিজের প্রথম ম্যাচেই তুলে নিয়েছেন হাফ সেঞ্চুরি। তাঁর সাথে ৯৯ রানের জুটি গড়ার সময়েই খাজা তুলে নেন ক্যারিয়ারের ৫ম সেঞ্চুরি। যদিও ওপেনিংয়ে নেমে তাঁর গড়টা একেবারেই ভালো ছিল না, ৮ ইনিংসে ৯৯ করা খাজার গড় ছিল মাত্র ১২! দক্ষিণ আফ্রিকার কোন বোলারই তাঁকে খুব একটা পরীক্ষায় ফেলতে পারেননি। 

    দিনের শেষভাগে কিছুটা হলেও ঘুরে দাঁড়ানোর আভাস দিয়েছেন আফ্রিকান ফাস্ট বোলাররা। হ্যান্ডসকম্বকে দুর্দান্ত এক বলে ফেরান অ্যাবট। নবাগত নিক ম্যাডিসন রানের খাতা না খুলেই রাবাদার বলে আউট হন। ম্যাথু ওয়েডও খুব অল্প সময়ই ছিলেন, ৪ রানে তাঁকে ফেরান ফিল্যান্ডার। দিনের বাকি সময়ে আর বিপদ ঘটতে দেননি খাজা-স্টার্ক জুটি।

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন