• বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া
  • " />

     

    স্মিথদের পাশে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন

    চুক্তি নবায়ন নিয়ে গত দুই মাস ধরেই টানাপোড়ন চলছে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড ও ক্রিকেটারদের মাঝে। শেষ পর্যন্ত চুক্তি নবায়নের সময়সীমা পার হওয়ায় কার্যত ‘বেকার’ হয়ে পড়েছেন স্মিথসহ ২৩০ জন অজি ক্রিকেটার। এরকম অবস্থায় অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে অস্ট্রেলিয়ার আসন্ন সিরিজগুলো। এবার অজি ক্রিকেটারদের দাবির সাথে সহমত পোষণ করল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন ফেডারেশন(ফিকা)।

    শুরু থেকেই অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের ওপর ভরসা রেখেছে ক্রিকেটাররা। দফায় দফায় দুই পক্ষের আলোচনাও হয়েছে। দুদিন আগে অ্যাসোসিয়েশনের সাথে এক জরুরী বৈঠকের পর ঘোষণা আসে, এই সপ্তাহের মাঝে চুক্তি নবায়ন না হলে আসন্ন দক্ষিণ আফ্রিকা সফর বয়কট করবে অস্ট্রেলিয়া ‘এ’ দল। ফিকার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বোর্ডের উচিত ক্রিকেটারদের দাবি মেনে নেওয়া, "গত ২০ বছর ধরে বোর্ড ও ক্রিকেটারদের মাঝে এরকম চুক্তি হয়ে আসছে। এই চুক্তি শুধু অস্ট্রেলিয়া না, অন্য দেশের বোর্ডের জন্যও উদাহরণস্বরূপ। তবে এখন বোর্ড দেশটির ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সাথে যেরকম ব্যবহার করছে সেটায় আমরা উদ্বিগ্ন। দুই পক্ষের মাঝে দর কষাকষিতে আমরা ক্রিকেটার ও অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষেই আছে। আমরা চাই যত দ্রুত সম্ভব এই সংকটের অবসান ঘটুক। কোনো বয়কটের ঘটনা ক্রিকেটের জন্য শুভ নয়।”

    ফিকার প্রেসিডেন্ট বিক্রম সোলাঙ্কির মতে, ক্রিকেটের এই ক্রান্তিকালে বোর্ডের উচিত ক্রিকেটারদের সাথে একত্রে কাজ করা, “ক্রিকেটাররাই খেলার প্রাণ। ইতিহাস এটাই সাক্ষ্য দেয় যে, বোর্ড এবং ক্রিকেটাররা মিলেমিশে কাজ করলেই সফলতা আসে। ক্রিকেট খেলা এখন ক্রান্তিকাল পার করছে। এরকম অবস্থায় বোর্ডের উচিত হবে ক্রিকেটার সাথে নিয়ে কাজ করা। তাঁদের দূরে সরিয়ে দিলে সেটা কারো জন্যই ভালো হবে না।”

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন