• দক্ষিণ আফ্রিকা-ইংল্যান্ড
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    কুকের সঙ্গে ফিল্যান্ডারদের হতাশ করল বৃষ্টিও

    স্কোর

    ১ম দিন শেষে

    ইংল্যান্ড ৫৯ ওভারে ১৭১/৪ (কুক ৮২*; ফিল্যান্ডার ২/১৭)


    লর্ডসে হারের পর ট্রেন্টব্রিজে গল্পটা দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ানোর। শততম টেস্টের নস্টালজিয়া মাখা ওভালে দক্ষিণ আফ্রিকার জন্য স্বপ্নের একটা দিন হতে পারত। মেঘলা লন্ডনে বল সুইং করছিল দুই দিকে, শুরু থেকেই খাবি খাচ্ছিল ইংল্যান্ড। শেষ পর্যন্ত বৃষ্টিতে দিনের অনেকটা খেলা যে পণ্ড হয়েছে, প্রোটিয়ারা তাতে আফসোস করতেই পারে। আর ১৭১ রানে ৪ উইকেট হারানোর পর ইংল্যান্ড স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতেই পারে, দিনটা এর চেয়ে খারাপও হতে পারত। সেটা না হওয়ার বেশির ভাগ কৃতিত্বই পাবেন  অ্যালিস্টার কুক। 


    ওভালের শততম টেস্টে ইংল্যান্ডের হয়ে তিন জনের অভিষেক হয়েছে আজ। তবে দুজনের জন্য এর মধ্যে দিনটা মনে রাখার মতো কিছু হয়নি। তার আগেই ইংল্যান্ড অবশ্য সকালে একবার হোঁচট খেয়েছে। নিজেকে হারিয়ে খুঁজতে থাকা কিটন জেনিংস ব্যর্থ আরও একবার , এবার ফিল্যান্ডারের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়েছেন কোনো রান না করেই। সকালে রুটের আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্তটা তখন প্রশ্নবিদ্ধ। 


    এরপরেই এসেক্স সতীর্থ টম ওয়েস্টলিকে নিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর পালা শুরু। প্রথম সেশন দুজন আর কোনো উইকেট না হারিয়েই পার করে দিয়েছে। তবে দ্বিতীয় সেশনের শুরুতেই আবার আঘাত আফ্রিকার, এবারও মরিসের বলে খোঁচা দিয়ে নবাগত ওয়েস্টলি ফিরেছেন ২৫ রান করেই। ইংল্যান্ডের দুই ভরসা রুট আর কুক এরপর একটু একটু টেনে তুলছিলেন, জুটিটাও জমে গিয়েছিল। কিন্তু তৃতীয় উইকেটে ৪৯ রানের জুটির পর ফিল্যান্ডারের বলে ফিরে গেছেন ইংলিশ অধিনায়ক রুট। মাত্র ২৯ রানেই ফিরে গেছেন, আর দুর্দান্ত ক্যাচের জন্য কৃতিত্ব দাবি করতে পারেন ডি ককও। আরেক নবাগত ডেভিড মালানও আরেকটি দারুণ বলের শিকার, রাবাদার পা বরাবর ইয়র্কার সামলাতে না পেরে বোল্ড ১ রান করেই। স্টোকস আর কুক এরপর আর বিপদ হতে দেননি, তবে চা বিরতির পর খেলা হয়েছে মাত্র সাত ওভার। বৃষ্টির জন্য নির্ধারিত সময়ের আগেই খেলা পরিত্যক্ত হয়ে গেছে, ডু প্লেসিদের হতাশাও বেড়েছে আরেকটু। 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন