• দক্ষিণ আফ্রিকা-ইংল্যান্ড
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    সাকলাইনকে কৃতিত্ব দিচ্ছেন মইন

    ইতিহাস গড়েছেন রীতিমতো। দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে ইংল্যান্ডের সিরিজ জয়ে ইতিহাস গড়া মইন আলির অবদান কম নয়। ব্যাটিংয়ে গুরুত্বপূর্ণ ইনিংসের পাশাপাশি উইকেট নিয়ে গেছেন নিয়মিত। এ সিরিজেও তাকে বলা হয়েছে ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় স্পিনার। সেই দ্বিতীয় স্পিনার হিসেবেই সিরিজসেরা বোলার মইন তার সাফল্যের জন্য কৃতিত্ব দিচ্ছেন ইংল্যান্ডের স্পিন উপদেষ্টা সাকলাইন মুশতাককে। 

    ‘সাকি(সাকলাইন) আমার খেলায় সাহায্যে করার ক্ষেত্রে ছিল অসাধারণ। আমার বোলিং আর যে কোনও সময়ের চেয়ে ভাল করে বুঝতে অনেক সাহায্য করেছে। এটাই অনেক বড় পার্থক্য গড়ে দিয়েছে।’ 

    ‘নিজ সামর্থ্য নিয়ে আমি এখন আগের চেয়ে বেশি আত্মবিশ্বাসী। এটা যে গড়ে উঠছে, সেটা বুঝতে পারছিলাম। ব্যাটিংটা ভালই ছিল কয়েক বছর ধরে, বোলিংটাও ধীরে ধীরে উন্নতি করছিল।’ 

    বোলিংয়ে নিজে আরও বেশি পরিণত হয়েছেন বলেই জানিয়েছেন, ‘আমি এখন আমার অ্যাকশনটা ভাল বুঝি। ফিল্ড-সেটিং, সামনের ব্যাটসম্যানের ধরন কেমন, বুঝতে পারি সেটাও। এই ছোট জিনিসগুলিই পার্থক্য গড়ে দেয়। ক্যারিয়ারের শুরুতে আমি এতো কিছু ভাবতাম না। অধিনায়ককে ফিল্ডিং সাজিয়ে দিতে বলে শুধু বল করে যেতাম। এ সিরিজে আমি নিজের ফিল্ডিং নিজে সাজিয়ে নিয়েছি, আগের চেয়ে বেশীবার।’

    মইনের উন্নতিটা চোখে পড়ছে অধিনায়ক জো রুটেরও, ‘সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সে উন্নতি করছে। সিরিজ শুরুর আগেই বলেছিলাম, ৩০টির বেশি টেস্ট খেলা ক্রিকেটারদের “সিনিয়র” হয়ে ওঠার এটা বড় সুযোগ। সে সেই সুযোগটা নিয়েছে, অসাধারণ পারফরম্যান্স দেখিয়েছে। আমি আশা করবো, এটা শুধু একটি সিরিজের জন্য নয়, বরং অব্যাহত থাকবে।’ 

    ‘মইনের এগিয়ে আসা, অবিশ্বাস্য সব ব্যাটিং-বোলিংয়ের প্রদর্শনী দেখতে পারাটা দারুণ একটা ব্যাপার।’ 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন