• ভারতের শ্রীলংকা সফর
  • " />

     

    রোহিত-ধোনিতে সিরিজ ভারতের

    সংক্ষিপ্ত স্কোর 

    শ্রীলংকা ২১৭/৯ ( থিরিমানে ৮০, বুমরাহ ৫/ ২৭) 

    ভারত ২১৮/৪ ( রোহিত ১২৪*, ধোনি ৬৭*) 

    ফলাফল- ভারত ৬ উইকেটে জয়ী 


     

    দ্বিতীয় ম্যাচে দনঞ্জয়ের সেই জাদুকরী স্পেলের কল্যাণে খানিকটা প্রতিরোধ গড়তে পেরেছিল শ্রীলংকা। তবে প্রথম ম্যাচের মত অনেকটা দাপটের সাথেই তৃতীয় ওয়ানডে জিতল কোহলিরা। রোহিত শর্মার দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরিতে পাল্লেকেলেতে লংকানদের ৬ উইকেটে হারিয়ে দুই ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করল ভারত।

     

    লক্ষ্যটা খুব বেশি ছিল না। ২১৮ রান তাড়া করতে নেমে অবশ্য শুরুতেই হোঁচট খায় ভারত। ৯ রানের মাথায় ফেরেন ধাওয়ান। ৩ রান করে কোহলি ফিরলে কিছুটা চাপে পরে দল। রোহিত-রাহুল জুটি প্রাথমিক ধাক্কা সামলে নেন। তবে আগের ম্যাচের মত এবারো অবিশ্বাস্য কিছু করার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন সেই দনঞ্জয়া। পরপর দুই ওভারে রাহুল ও যাদবকে ফিরিয়ে আশার আলো দেখান দলকে।

     

    ওই পর্যন্তই শেষ। ধোনিকে নিয়ে রোহিতের ১৫৭ রানের জুটি আর কোনো বিপদ আসতে দেয়নি। ১৬ চার ও ২ ছয়ে রোহিত তুলে নেন ক্যারিয়ারের ১২ তম সেঞ্চুরি। শ্রীলংকার বিপক্ষে এটি তাঁর তৃতীয় সেঞ্চুরি। ৬৭ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে এদিন ধোনি করেছেন একটি ‘রেকর্ড’। ৭২ টি অপরাজিত ইনিংস খেলে শন পোলক ও চামিন্দা ভাসের সাথে এখন তিনিও ওয়ানডেতে সবচেয়ে বেশি অপরাজিত ইনিংসের মালিক। এদিন ছাড়িয়ে গেছেন আজহারউদ্দিনকেও, ওয়ানডেতে ধোনির রান ৯৩৭৮, যা ভারতের পক্ষে চতুর্থ সর্বোচ্চ।

     

     

    দিনের শুরুতে থিরিমানের ৮০ রানের কল্যাণে ২১৭ রান তোলে শ্রীলংকা। জাসপ্রিত বুমরার ৫ উইকেট নেওয়ার দিনে আর কোনো লংকান ব্যাটসম্যানই দাঁড়াতে পারেননি। ক্যারিয়ারের প্রথম পাচ উইকেট নেওয়া বুমরাহই হয়েছেন ম্যাচসেরা। এই নিয়ে শ্রীলংকার বিপক্ষে টানা ৭ সিরিজে জয় পেলো ভারত।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন