• বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    মুশফিকদের আরও সময় দিতে চান মাহমুদ

    বিপিএলের প্রথম অর্ধেক পার প্রায় হয়ে গেছে। তবে গত শুক্রবার বাদ দিলে অন্য সময় বিদেশীদের আড়ালেই ম্লান হয়ে যাচ্ছেন দেশীরা। বোলাররা অবশ্য ভালোই করছেন, আবু হায়দার ও আবু জায়েদ আছেন এক ও দুইয়ে। কিন্তু ব্যাটসম্যানদের মধ্যে শীর্ষ ছয়ে বাংলাদেশের একমাত্র প্রতিনিধি মুমিনুল হক। ব্যাপারটা যে একটু হলেও উদ্বেগের, স্বীকার করে নিয়েছেন ঢাকা ডায়নামাইটস কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন। তবে মনে করিয়ে দিচ্ছেন, টুর্নামেন্টের এখনো অনেকটাই বাকি। শেষ পর্যন্ত দেশীরা আরও ভালো করবে বলেই বিশ্বাস মাহমুদের।

    এর আগের ম্যাচে ঢাকার স্থানীয় খেলোয়াড়েরাই শুরুতে ব্যাট করার সুযোগ পাননি। খুলনার সঙ্গে ম্যাচে পরে নেমেই জহুরুল ইসলাম ও মোসাদ্দেক হোসেন এনে দিয়েছেন জয়। তবে আজ আরও বড় কিছুর সুযোগ পেয়েছিলেন জহুরুল, শহীদ আফ্রিদি আউট হওয়ার পর উঠে এসেছেন তিনে। কিন্তু সেটি কাজে লাগাতে পারেননি, মিরাজের বলে আউট হয়ে ফিরেছেন ১৩ রানে। চারে নেমে নাদিফ চৌধুরীও আউট হয়ে গেছেন ৬ রান করে। দেশীরা যে সুযোগ পাচ্ছে, সেটি তাই আরেকবার মনে করিয়ে দিলেন মাহমুদ। আজ সুযোগটা হাতছাড়া হয়ে গেলেও সামনের ম্যাচে দেশীদের আরও সুযোগ আসবে বলে বিশ্বাস করেন মাহমুদ।

    শুধু ঢাকা নয়, অন্য দলেও টপ অর্ডারে বিদেশীরাই আলো ছড়াচ্ছেন। মাহমুদ সেটা জানেন, তবে গত কয়েক দিনে যে দেশীরা আরও ভালো করছেন সেটাও ভুলে যাচ্ছেন না, ‘হ্যাঁ, দেশী ব্যাটসম্যানরা হয়তো সেভাবে ভালো করতে পারছে না। তবে একদম যে ভালো ইনিংস নেই তা নয়। মুমিনুল ভালো করছে, আগের ম্যাচে জাকির খুব ভালো একটা ইনিংস খেলেছে। ইমরুলও এক দুইটি ভালো ইনিংস খেলেছে, সৌম্যও ফর্মে আছে বলে মনে হচ্ছে। আমার মনে হয় টুর্নামেন্ট তো এখনো অনেকটা বাকি, চার পাঁচটি করে ম্যাচ খেলেছে দলগুলো। সামনে নিশ্চয় আরও ভালো করার সুযোগ এখনো আছে।’

    মুমিনুল, মাহমুদউল্লাহ ইমরুলরা একটু আশার আলো দেখালেও জাতীয় দলের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে মুশফিক, সাব্বিররা এখনো ব্যর্থ বড় কিছু করতে। মাহমুদের কথা থেকে নিশ্চয় আশা পেতে চাইবেন তাঁরা!

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন