• অ্যাশেজ ২০১৭-১৮
  • " />

     

    এবার ইংল্যান্ডের বৃষ্টি-হতাশা

    চতুর্থ টেস্ট, মেলবোর্ন
    টস- অস্ট্রেলিয়া (ব্যাটিং)
    ৪র্থ দিনশেষে 
    অস্ট্রেলিয়া ১ম ইনিংস ৩২৭ অল-আউট (ওয়ার্নার ১০৩, স্মিথ ৭৬, মার্শ ৬১, ব্রড ৪/৫১, অ্যান্ডারসন ৩/৬১) ও ২য় ইনিংস ১০৩/২ (ওয়ার্নার ৪০*, স্মিথ ২৫*)
    ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস ৪৯১ অল-আউট (কুক ২৪৪*, রুট ৬৫, ব্রড ৫৬, লায়ন ৩/১০৯, হ্যাজলউড ৩/৯৫)
    অস্ট্রেলিয়া ৮ উইকেটে ৬১ রানে পিছিয়ে


    ওয়াকায় বৃষ্টি-সাহায্য দরকার ছিল ইংল্যান্ডের। শেষদিনে ‘পর্যাপ্ত’ পরিমাণে বৃষ্টি না পেয়ে অ্যাশেজই খুইয়ে বসেছে। মেলবোর্নে উলটো চিত্র। যখন টেস্টে এগিয়ে যাচ্ছে ইংল্যান্ড, বৃষ্টি এসে থামিয়ে দিয়েছে খেলা। সঙ্গে আছেন অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিংয়ের দুই স্তম্ভ, স্টিভ স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নার। শেষদিনে ৬১ রানে পিছিয়ে থেকে নামবে অস্ট্রেলিয়া, আছে ৮ উইকেট। 

    সকালে শুধু অ্যালেস্টার কুকের রেকর্ডের জন্যই যেন নেমেছিল ইংল্যান্ড। দিনের প্রথম বলেই কামিন্সের বাউন্সারে শর্ট লেগে ক্যাচ দিয়েছেন জেমস অ্যান্ডারসন, কুক হয়ে গেছেন ইনিংসে ব্যাট ক্যারি করে সর্বোচ্চ ইনিংসের মালিক। নিউজিল্যান্ডের গ্লেন টার্নারের ১৯৭২ সালের ২২৩ রানের রেকর্ড ভেঙ্গেছে কুকের ২৪৪ রানের ইনিংস। ১৯৯৭ সালে মাইক আথারটনের পর প্রথম ইংলিশ ব্যাটসম্যান হিসেবেও ইনিংসজুড়ে অপরাজিত থাকার রেকর্ড গড়েছেন কুক। 

    ১৬৪ রানে পিছিয়ে থেকে অস্ট্রেলিয়ার শুরুটা হয়েছিল দৃঢ়। তবে ক্যামেরন ব্যানক্রফট ও ডেভিড ওয়ার্নারের ভূমিকা যেন বদলে গেল ওপেনিং জুটিতে। ব্যানক্রফট মারমুখি ছিলেন, ওয়ার্নার ছিলেন খোলসের ভেতর। ক্রিস ওকসের ভেতরের দিকে ঢোকা বলে ইনসাইড-এজ হয়ে বোল্ড হয়েছেন ব্যানক্রফট, এর আগে ওপেনিং জুটি হয়ে গেছে ৫১ রানের। 

    উসমান খাওয়াজা জনি বেইরস্টোকে ক্যাচ দিয়েছেন জিমি অ্যান্ডারসনের বেরিয়ে যাওয়া বলে, লাঞ্চের আগেই দুই উইকেট নিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে ব্যাকফুটে ঠেলেছিল ইংল্যান্ড। তবে সবচেয়ে বড় দুই বাধা ছিলেন, স্মিথ-ওয়ার্নার। ওয়ার্নার ছিলেন ধীর, ১৪০ বলে ৪০ রান করে আছেন অপরাজিত। ফিল্ডিংয়ে তাকে যেন বাক্সবন্দি করে রেখেছিল ইংল্যান্ড, সঙ্গে নিয়ন্ত্রিত লাইন-লেংথে ছিলেন খোলসবন্দি হয়েই। স্টিভ স্মিথের বিপক্ষেও বেশ কৌশলি ছিলেন রুট ও তার বোলাররা। তবে রিভার্স সুইং আরও ভালভাবে জেঁকে বসার আগেই, স্মিত-ওয়ার্নারের আরও বড় পরীক্ষা ইংলিশ বোলাররা নেয়ার আগেই নেমেছে বৃষ্টি। থেমে থেমেই ফিরে এসেছে। 

    মেলবোর্নে দিনে খেলা হয়েছে ৪৪ ওভার। শেষদিনে অন্তত ৯৮ ওভার হওয়ার কথা খেলা। 


     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন